মঙ্গলবার, ২৮ মে, ২০২৪, ঢাকা

এগিয়ে ইমরান সমর্থিত স্বতন্ত্র প্রার্থীরা, কীভাবে হবে সরকার গঠন?

আন্তর্জাতিক ডেস্ক
প্রকাশিত: ০৯ ফেব্রুয়ারি ২০২৪, ১১:০৭ পিএম

শেয়ার করুন:

এগিয়ে ইমরান সমর্থিত স্বতন্ত্র প্রার্থীরা, কীভাবে হবে সরকার গঠন?

পাকিস্তানের সাধারণ নির্বাচনের ফলাফলে এগিয়ে আছেন দেশটির সাবেক প্রধানমন্ত্রী ইমরান খানের দল তেহরিক-ই-ইনসাফ (পিটিআই) সমর্থিত স্বতন্ত্র প্রার্থীরা। ঘোষিত ২২৬ আসনের মধ্যে ৯২ আসন পেয়েছেন তারা। আরেক সাবেক প্রধানমন্ত্রী নওয়াজ শরিফের দল পাকিস্তান মুসলিম লিগ (পিএমএল-এন) ৬৪ আসন পেয়ে রয়েছে দ্বিতীয় অবস্থানে। আর ৫০ আসন পেয়ে এরপরে রয়েছে বিলাওয়াল ভুট্টো জারদারির দল পাকিস্তান পিপলস পার্টি (পিপিপি)। খবর আল জাজিরা।

২২৬ আসনের ফল দিয়ে কাতারভিত্তিক সংবাদমাধ্যম আল-জাজিরার প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, ইমরানের দলের সমর্থিত স্বতন্ত্র প্রার্থীরা জিতেছেন ৮৮টি আসনে। নওয়াজের দলের প্রার্থীরা ৬৪ আসন ও বিলাওয়ালের দলের প্রার্থীরা ৫০ আসনে জয় পেয়েছেন। আর ২০টি আসনে জিতেছেন অন্য প্রার্থীরা।


বিজ্ঞাপন


স্থানীয় গণমাধ্যম ডন বলছে, ঘোষিত ১৬৬ আসনের মধ্যে ৬৫ আসনে জিতে এগিয়ে রয়েছেন ইমরানের দলের সমর্থিত প্রার্থীরা। আর নওয়াজের দল ৪৬ ও বিলাওয়ালের দল ৩৮ আসনে জিতেছে। জমিয়তে উলামায়ে ইসলাম (জেইউআই-পি) জিতেছে ১ আসনে এবং বাকি ১৬টি আসনে জিতেছেন অন্য প্রার্থীরা।

পাকিস্তানের সাধারণ নির্বাচনের ২৬৫ আসনে (একটি স্থগিত) ভোট গ্রহণ অনুষ্ঠিত হয় গতকাল বৃহস্পতিবার (৮ ফেব্রুয়ারি)। কোনো দলের সরকার গঠনে প্রয়োজন হবে ১৩৪ আসন। সেই হিসেবে কোনও দল এককভাবে সরকার গঠন করতে পারবে না বলেই সম্ভাব্য ফলাফলে মনে হচ্ছে। তাই কীভাবে হবে সরকার গঠন, তা নিয়ে প্রশ্ন উঠেছে।

nawaj2


বিজ্ঞাপন


সরকার গঠনে জোট প্রসঙ্গে যা বললেন নওয়াজ শরিফ

আনুষ্ঠানিক ফলাফল সত্ত্বেও ভোটের পর পাকিস্তান মুসলিম লিগ (পিএমএল-এন) বৃহত্তম দল বলে মন্তব্য করেছেন পাকিস্তানের সাবেক প্রধানমন্ত্রী নওয়াজ শরিফ। তবে সরকার গঠন করার মতো সংখ্যা (আসন) নেই বলেও জানান তিনি।

শুক্রবার (৯ ফেব্রুয়ারি) লাহোরে পিএমএল-এন কেন্দ্রীয় সচিবালয়ে নওয়াজ শরীফ এ কথা বলেন।

শরীফ বলেন, নির্বাচনের পর সবচেয়ে বড় দল পিএমএলএন। দেশকে কঠিন সময় থেকে বের করে এনেছি এবং আবারও করব। সরকার গঠনের জন্য সব দলকে একত্রিত হওয়া উচিত এবং আমরা তাদের পাকিস্তানকে সঙ্কট থেকে মুক্তি দিতে আমাদের সাথে বসতে আমন্ত্রণ জানাই।

সরকার গঠন করার মতো সংখ্যা নেই স্বীকার করে পিএমএল-এন প্রধান বলেন, সব দল মিলে সরকার গঠন করা উচিৎ এবং সংকট থেকে উত্তরণে অন্যান্য দলের নেতাদের আমন্ত্রণ জানানো হবে।

পাকিস্তানকে ‘পরিবর্তন’ করতে অন্যান্য দলের সাথে একত্রে বসতে চান বলেও জানিয়ে নওয়াজ শরীফ বলেন, অন্যান্য রাজনৈতিক দল এবং স্বতন্ত্র প্রার্থীদের প্রাপ্ত ম্যান্ডেটকে সম্মান করি।

pti

সরকার গঠনে জোট প্রসঙ্গে যা বলছে পিটিআই

সাবেক প্রধানমন্ত্রী নওয়াজ শরিফের দল পাকিস্তান মুসলিম লীগ-নওয়াজ (পিএমএল-এন) এবং বিলাওয়াল ভুট্টো জারদারির দল পাকিস্তান পিপলস পার্টি (পিপিপি) এর সঙ্গে জোট করে সরকার গঠন করবে না বলে জানিয়েছে ইমরান খানের দল পাকিস্তান তেহরিক-ই-ইনসাফ (পিটিআই)। শুক্রবার (৯ ফেব্রুয়ারি) পিটিআই চেয়ারম্যান ব্যারিস্টার গহর আলী খান এ ঘোষণা দিয়েছেন। জিও নিউজ

গহর আলী খান বলেন, ‘পিএমএল–এন ও পিপিপির সঙ্গে আমরা যোগাযোগ রাখছি না।’

১৫০টি আসনে পিটিআই জয় পেতে যাচ্ছে দাবি করে তিনি বলেন, ‘আমরা (পিটিআই) কেন্দ্রে এবং পাঞ্জাবের প্রাদেশিক পরিষদে সরকার গঠন করব।’

গহর আলী খান বলেন, ‘আমরা কেন্দ্র এবং পাঞ্জাবে সরকার গঠন করব।’

উল্লেখ্য, বৃহস্পতিবার (৮ ফেব্রুয়ারি) স্থানীয় সময় সকাল ৮ টায় শুরু হওয়া ভোট চলে বিকেল ৫টা পর্যন্ত। সংঘাতপূর্ণ নির্বাচনে ভোটগ্রহণের দিনে পাকিস্তানজুড়ে বন্ধ রাখা হয়েছিল মোবাইল পরিষেবা। মূলত নিরাপত্তার স্বার্থে এই উদ্যোগ নেয় দেশটির সরকার। তবে আজ পাকিস্তানে মুঠোফোন সেবা চালু রয়েছে।

পাকিস্তানের জাতীয় ও আঞ্চলিক নির্বাচনে সবমিলিয়ে ১৭ হাজার ৮১৬ জন প্রার্থী আছেন। এর মধ্যে জাতীয় নির্বাচনে পাঁচ হাজার ১২১ জন ও আঞ্চলিক নির্বাচনে ১২ হাজার ৬৯৫ জন প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। এরমধ্যে ১১ হাজার ১৭৪ জন পুরুষ ও ৬০৭ জন নারী।

সূত্র: আল জাজিরা, জিও নিউজ, ডন।

এমএইচটি

ঢাকা মেইলের খবর পেতে গুগল নিউজ চ্যানেল ফলো করুন

সর্বশেষ
জনপ্রিয়

সব খবর