রোববার, ২৩ জুন, ২০২৪, ঢাকা

ভূমধ্যসাগরে ৩০ আরোহীসহ নৌকাডুবি, উদ্ধার ১৭ জনই বাংলাদেশি

অভিবাসন ডেস্ক
প্রকাশিত: ১৪ মার্চ ২০২৩, ০১:৩৯ পিএম

শেয়ার করুন:

ভূমধ্যসাগরে ৩০ আরোহীসহ নৌকাডুবি, উদ্ধার ১৭ জনই বাংলাদেশি

লিবিয়া থেকে অবৈধভাবে ইতালি যাওয়ার পথে ভূমধ্যসাগরে নৌকাডুবে ৩০ জন নিখোঁজের ঘটনায় ১৭ জনকে উদ্ধার করা হয়েছে। উদ্ধারকৃত সবাই বাংলাদেশি। রোববার (১২ মার্চ) তাদের উদ্ধার করে ইতালির উপকূলরক্ষী বাহিনী।

মঙ্গলবার (১৪ মার্চ) এক প্রতিবেদনে ইতালির গণমাধ্যম এএনএসএ এর বরাত দিয়ে এই তথ্য জানিয়েছে বার্তাসংস্থা রয়টার্স।


বিজ্ঞাপন


প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, সোমবার ভূমধ্যসাগরে সর্বশেষ নৌকাডুবির ঘটনায় ১৭ অভিবাসীকে উদ্ধার করে উপকূলে নিয়ে আসে ইতালির উপকূলরক্ষী বাহিনী। উদ্ধারকৃত অভিবাসীদের ইতালির সিসিলি দ্বীপের পোজালো শহরে নিয়ে যাওয়া হয়েছে। এরা সবাই বাংলাদেশি নাগরিক।

কমপক্ষে ৩০ জন পানিতে ডুবে মারা গিয়েছেন দাবি করে দাতব্য সংস্থা অ্যালার্ম ফোন অভিযোগ করে, বারবার অনুরোধ করা সত্ত্বেও ইতালি উপকূলরক্ষী বাহিনীকে উদ্ধারকাজে পাঠায়নি।

এক বিবৃতিতে সংস্থাটি জানায়, ‘ইতালি সরকার উদ্ধারকাজ এড়িয়ে যেতে চেয়েছে। তারা চেয়েছিল অভিবাসীদের ইতালিতে নিয়ে আসতে যেন দেরি হয়। ফলে লিবিয়ার উপকূলরক্ষী বাহিনী এসে অভিবাসীদের জোর করে ফিরিয়ে নিতে পারবে।’

bangladeshi-rescue-italyইতালির উপকূলরক্ষী বাহিনী জানিয়েছে, লিবিয়া থেকে সমুদ্রপথের বিপজ্জনক যাত্রায় খারাপ আবহাওয়ার কারণে  অভিবাসীদের একটি নৌকা গত রোববার ভূমধ্যসাগরে ডুবে যায়। ওই ঘটনায় ৩০ অভিবাসী ডুবে গেছে বলে আশঙ্কা করা হচ্ছে।


বিজ্ঞাপন


ইতালির অনুসন্ধান এবং উদ্ধার এলাকার বাইরে (এসএআর) ঘটনাটি ঘটেছে বলেও তারা জানিয়েছে।

ইতালির পররাষ্ট্রমন্ত্রী আন্তোনিও তাজানি বলেছেন, ‘নৌকাডুবি এড়াতে রোমের পক্ষে যা যা করা সম্ভব, সব ব্যবস্থাই নেয়া হয়েছে। আমরা সবসময় বলে আসছি, সমুদ্রে চলাচলের অযোগ্য জলযান প্রস্থান অর্থাৎ ডিপারচার বন্ধ করা প্রয়োজন। আমার কাছে মনে হচ্ছে উপকূলরক্ষী বাহিনী, আমাদের নৌবাহিনী এবং আমাদের ফিনান্স পুলিশ যা করছে তা প্রশংসার যোগ্য।’

এর আগে, গত ২৬ ফেব্রুয়ারি ক্যালাব্রিয়ার দক্ষিণ অঞ্চল কাছাকাছি জাহাজডুবির ঘটনা ঘটে। ওই ঘটনায় ৭৯ জনের মৃত্যু হয়।

এমএইচটি

ঢাকা মেইলের খবর পেতে গুগল নিউজ চ্যানেল ফলো করুন

সর্বশেষ
জনপ্রিয়

সব খবর