শনিবার, ২৫ মে, ২০২৪, ঢাকা

কিডনি ইনস্টিটিউটে ডায়ালাইসিস বন্ধ ৬ ঘণ্টা, ভোগান্তি 

নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ২২ জানুয়ারি ২০২৩, ০৪:২২ পিএম

শেয়ার করুন:

কিডনি ইনস্টিটিউটে ডায়ালাইসিস বন্ধ ৬ ঘণ্টা, ভোগান্তি 

রাজধানীর শেরেবাংলা নগরে জাতীয় কিডনি রোগ ও ইউরোলজি ইনস্টিটিউটে প্রায় ৬ ঘণ্টা ডায়ালাইসিস সেবা বন্ধ থাকার পর আবারও পুরোপুরি সচল হয়েছে। রোববার (২২ জানুয়ারি) সকাল ৮টা থেকে দুপুর দেড়টা পর্যন্ত প্রতিষ্ঠানটিতে ডায়ালাইসিস সেবা বন্ধ ছিল। এতে সেবা নিতে আসা রোগী ও স্বজনদের মধ্যে উদ্বেগ দেখা দেয়। 

হাসপাতাল সূত্রে জানা যায়, কিডনি ইনস্টিটিউটে সাপ্তাহিক ছুটি ছাড়া প্রতিদিন সকাল ৮টা থেকে রাত ১০টা পর্যন্ত ডায়ালাইসিস সেন্টার চালু থাকে। সরকারের পাবলিক প্রাইভেট পার্টনারশিপ প্রকল্পের আওতায় ভারতীয় প্রতিষ্ঠান স্যানডোর ডায়ালাইসিস সেন্টারটি পরিচালনা করে। রোববার সাকালে সাধারণ দিনের মতোই পূর্ব নির্ধারিত সময়ে রোগীরা সেন্টারে আসলে স্যানডোর কর্তৃপক্ষ ডায়ালাইসিসের জন্য কাঁচামালের সঙ্কটের কথা জানিয়ে অপেক্ষা করতে বলে। এতে সেবা নিতে আসা রোগীরা দুশ্চিন্তা ও দীর্ঘ অপেক্ষার ভোগান্তিতে পড়েন। 


বিজ্ঞাপন


নীলফামারী থেকে হাসপাতালটিতে ডায়ালাইসিস নিতে আসা মুহাম্মদ খুরশেদ কামাল ঢাকা মেইলকে বলেন, আমি গত দুই বছর ধরে এখানে ডায়ালাইসিস নিচ্ছি। প্রতি সপ্তাহে দুটি ডায়ালাইসিস নিতে হয়। ডায়ালাইসিসের তারিখ ও সময় পূর্ব নির্ধারিত থাকে। সেই অনুযায়ী আজকে সকাল ৮টায় আমাকে সময় দেওয়া ছিল। সকাল সাড়ে ৭টায় আমি এখানে আসি। তবে সরঞ্জাম নেই জানিয়ে অপেক্ষা করতে বলা হয়। তখন থেকে অপেক্ষায় আছি। দুপুর ১টার পর আবার আসতে বলা হয়। ১টা ৪০ মিনিটে ডায়ালাইসিসের প্রস্তুতি শুরু হয়।

কিডনি ডায়ালাইসিস

অপর এক রোগীর স্বাজন জানান, সরকারি হাসপাতাল হলেও কিডনি ইনস্টিটিউটে স্যানডোর নামে একটি কোম্পানি বেসরকারিভাবে ডায়ালাইসিসি দেয়। আজ তাদের কী যেন ঝামেলা হয়েছে। তাদের নাকি ডায়ালাইসিসের ইন্সট্রুমেন্ট নেই। যাদের সকাল ৮টায় দেওয়ার কথা ছিল তাদের দুপুর দেড়টায় ডাকিয়ে ডায়ালাইসিস শরু করেছে। রোগীদের জন্য এত লম্বা সময় অপেক্ষা করাটা কষ্টকর। এর মধ্যে আবার ডায়ালাইসিস হবে কিনা তা নিয়েও শঙ্কা ছিল। কারণ এর আগেও অনেকবার এমন হয়েছে। রোগীরা এসে দেখেছে ডায়ালাইসিস বন্ধ। পরে দীর্ঘক্ষণ অপেক্ষা করেও ডায়ালাইসিস না নিয়ে ফেরত যেতে হয়েছে। এমনও হয়েছে টানা কয়েকদিন ডায়ালাইসিস বন্ধ।

জাতীয় কিডনি রোগ ও ইউরোলজি ইনস্টিটিউটের পরিচালক অধ্যাপক ডা. আক্তারুজ্জামানের কাছে জানতে চাইলে তিনি ঢাকা মেইলকে বলেন, বিষয়টি সম্পর্কে অবগত আছি। স্যানডোর জানিয়েছে তাদের ডায়ালাইসিস সরঞ্জাম আসতে দেরি হওয়ায় সাময়িক এই সমস্যা। এখন কোনো সমস্যা নেই, ডায়ালাইসিস চলছে।


বিজ্ঞাপন


উল্লেখ্য, কিডনি ইনস্টিটিউট ও হাসপাতলটির ডায়ালাইসিস সেন্টারে মোট ৬০টি শয্যা রয়েছে। ডায়ালাইসিসের মাধ্যমে একেকজন রোগী রক্ত পরিশোধন করতে প্রস্তুতিসহ চার থেকে পাঁচ ঘণ্টা সময় লাগে। এই হিসেব তিনটি শিফটে হাসপাতালটিতে প্রতিদিন ১৮০ থেকে ২০০ রোগীর ডায়ালাইসিস হয়। স্বাস্থ্য অধিদফতরের সাথে হওয়া পিপিপি চুক্তির ২০১৫ সাল থেকে স্যানডোর এই সেবা দিয়ে আসছে। 

এমএইচ/এইউ

ঢাকা মেইলের খবর পেতে গুগল নিউজ চ্যানেল ফলো করুন

সর্বশেষ
জনপ্রিয়

সব খবর