শনিবার, ১৮ মে, ২০২৪, ঢাকা

প্রথমে ঐশ্বরিয়া তারপর হ্যারিসন ফোর্ড

আলমগীর কবির
প্রকাশিত: ১৯ মে ২০২৩, ০৫:৩৭ পিএম

শেয়ার করুন:

প্রথমে ঐশ্বরিয়া তারপর হ্যারিসন ফোর্ড

না, এখানে হলিউডের বিখ্যাত অভিনেতা হ্যারিসন ফোর্ডের সঙ্গে ঐশ্বরিয়ার তুলনা করা হয়নি। কেউ কাউকে ছাড়িয়েও যাননি। তবে একটি জায়গায় বলিউড অভিনেত্রী ঐশ্বরিয়া এগিয়ে ছিলেন হ্যারিসন ফোর্ডের চেয়েও। এই প্রসঙ্গে বিস্তারিত বলার আগে কান চলচ্চিত্র উৎসব সম্পর্কে কিছু তথ্য দেওয়া দরকার।

বিশ্বের সবচেয়ে মর্যাদাপূর্ণ এই চলচ্চিত্র উৎসবে কখন কি ঘটবে তা মেইলের পাশাপাশি প্রিন্টিং লিফলেটের মাধ্যমে জানিয়ে দেওয়া হয় আগে থেকেই। যদিও লাল গালিচার বিষয়টি ঢালাওভাবে সবাইকে জানানো হয় না। পূর্ব তালিকা অনুযায়ী কানের স্থানীয় সময় ১৮ মে( বৃহস্পতিবার) বিকেলে লাল গালিচায় হাঁটার কথা ছিল ‘ইন্ডিয়ানা জোন্স অ্যান্ড দ্য ডায়াল অব ডেস্টিনি’র তারকাদের। স্বাভাবিকভাবেই যার নেতৃত্বে থাকবেন সিনেমারটির প্রধান তারকা হ্যারিসন ফোর্ড। এই খবরে বৃহস্পতিবার (১৮ মে) দুপুরের পর থেকেই লাল গালিচা কেন্দ্র করে দর্শকদের সংখ্যা বাড়তে থাকে। কিন্তু হ্যরিসনের জন্য অপেক্ষায় থাকা দর্শকরা হঠাৎ করেই পেলেন দারুন চমক।


বিজ্ঞাপন


লালগালিচায় ঐশ্বরিয়া হাজির হলেন কালো-রূপালি লম্বা গাউন গায়ে জড়িয়ে। সেখানেও শেষ হলে এতটা মুগ্ধতায় ভাসত না সাগরপাড়ের শহর। গাউনের সঙ্গে ম্যাচ করে বচ্চনবধূ মাথা ঢেকেছেন ভিন্নমাত্রার এক হুডিতে। সঙ্গে কোমর বরাবর লম্বা একটা ব্ল্যাক বো- যেন নতুন মাত্রা দিয়েছে রূপালি গাউন আর লালগালিচার সঙ্গে। এর সঙ্গে তার হাঁটা ও চাহনি ছিল ভুবন ভোলানো।

এ কারণেই উপস্থিত দর্শকরা বলেছেন, ১৮ মে দিনের প্রথম চমকটা দিয়েছেন ঐশ্বরিয়া; তারপর তো হ্যারিসনের চমক ছিলই।

ঐশ্বরিয়ার লাল গালিচায় যাওয়ার বিষয়টিকে চমক বলা হচ্ছে মূলত তার কানে পৌঁছানোর দিনক্ষণ হিসেব করে। উপমহাদেশের জনপ্রিয় এই তারকা বিশেষ জেট প্লেনে কান সৈকতে এসেছিলেন উৎসবের শুরুর দিনই। কিন্তু তারপর আর কোনো আপডেট পাওয়া যায়নি, কবে, কখন লাল গালিচায় হাঁটবেন সে বিষয়েও কেউ কিছু জানতে পারেননি। তাই উৎসবের তৃতীয় দিনে হঠাৎ তাকে লালগালিচায় পেয়ে চমকিত হওয়াটাই তো স্বাভাবিক।

ঐশ্বরিয়ার সঙ্গে অভিষেক বচ্চন ও তাদের মেয়ে আরাধ্যও এসেছেন কানে। তবে তাদের লাল গালিচায় দেখা যায়নি। এর আগে আরও ২০বার কান-গালিচায় পা রেখেছেন তিনি। সে হিসাবে ২১বারের মতো কানে দেখা গেলো সাবেক এই বিশ্ব সুন্দরীকে।


বিজ্ঞাপন


ঐশ্বরিয়া চলে যাওয়ার কিছুক্ষণ পরই লাল গালিচায় হাজির হন দিনের প্রধান আকর্ষণ ইন্ডিয়ানা জোন্স টিম। চার দশক ধরে রুপালি পর্দায় ইন্ডিয়ানা জোন্সের দুঃসাহসিক কাজ দর্শকদের মুগ্ধ করেছে। এবার এই ফ্র্যাঞ্চাইজির শেষ চলচ্চিত্র ‘ইন্ডিয়ানা জোন্স অ্যান্ড দ্য ডায়াল অব ডেস্টিনি’ প্রদর্শনের আগে টিম নিয়ে হাজির হয়েছিলেন আমেরিকান অভিনেতা হ্যারিসন ফোর্ড। সঙ্গে ছিলেন জেমস ম্যানগোল্ড, অভিনেত্রী ফিবি ওয়ালার-ব্রিজ, অভিনেতা অ্যান্টোনিও ব্যান্ডেরাস, জন রাইস-ডেভিস, টোবি জোন্স, বয়েড হলব্রুক, এথান ইসিডোর, ম্যাডস মিকেলসেন ও সংগীত পরিচালক জন উইলিয়ামস। সিনেমায় হ্যারিসন ফোর্ড অভিনয় করেছেন প্রত্নতত্ত্বের অধ্যাপক চরিত্রে। লাল গালিচার পর ৮০ বছর বয়সী এই তারকার বর্ণাঢ্য ক্যারিয়ারের প্রতি বিশেষ সম্মান জানিয়েছেন আয়োজক কর্তৃপক্ষ।

সর্বশেষ ২০০৮ সালের কান উৎসবের অফিসিয়াল সিলেকশনে ছিল স্টিভেন স্পিলবার্গের ‘ইন্ডিয়ানা জোন্স অ্যান্ড দ্য কিংডম অব দ্য ক্রিস্টাল স্কাল’। ১৫ বছর পর কানসৈকতে দেখা গেল বিখ্যাত অভিযাত্রী ইন্ডিয়ানা জোন্সের বহুল প্রত্যাশিত প্রত্যাবর্তন।

১৯৯৫ সালে কান উৎসবের সমান্তরাল বিভাগ ডিরেক্টর’স ফোর্টনাইটে স্থান পায় জেমস ম্যানগোল্ডের প্রথম চলচ্চিত্র ‘হেভি’। ২৮ বছর পর আবারও কানসৈকতে ফেরার সুযোগ পেয়ে গর্বিত তিনি। ছবিটি দেখাতে বেশ উচ্ছ্বসিত ৫৯ বছর বয়সী এই আমেরিকান নির্মাতা। তার ঝুলিতে আছে সংগীতশিল্পী জনি ক্যাশের বায়োপিক ‘ওয়াক দ্য লাইন’ (২০০৫), ‘ফোর্ড ভার্সাস ফেরারি’ (২০১৯) ছবিগুলো।

১৯৮১ সালে মুক্তি পায় ‘রেইডার্স অব দ্য লস্ট আর্ক’। সেই থেকে এই ফ্র্যাঞ্চাইজির প্রতিটি চলচ্চিত্রের আবহ সংগীত পরিচালনা করেছেন জন উইলিয়ামস। এবারও ব্যতিক্রম হয়নি।

দ্য ওয়াল্ট ডিজনি কোম্পানি এবং লুকাসফিল্ম প্রযোজিত ‘ইন্ডিয়ানা জোন্স অ্যান্ড দ্য ডায়াল অব ডেস্টিনি’ ফ্রান্সে আগামী ২৮ জুন এবং যুক্তরাষ্ট্রে আগামী ৩০ জুন ছবিটি মুক্তি পাবে। এর নির্বাহী প্রযোজক হিসেবে দায়িত্ব পালন করেছেন কিংবদন্তি দুই পরিচালক স্টিভেন স্পিলবার্গ ও জর্জ লুকাস।

দক্ষিণ ফ্রান্সের কানসৈকতে ৭৬তম এই ঐতিহাসিক উৎসবের পর্দা নামবে ২৭ মে। সমাপনী চলচ্চিত্র হিসেবে দেখানো হবে পিক্সার অ্যানিমেশন স্টুডিওর ২৭তম সিনেমা ‘এলেমেন্টাল’।

একেবি/আরআর

ঢাকা মেইলের খবর পেতে গুগল নিউজ চ্যানেল ফলো করুন

সর্বশেষ
জনপ্রিয়

সব খবর