শনিবার, ১৮ মে, ২০২৪, ঢাকা

আমি না, ঘরে ফিরেছে রাজ: পরীমণি

বিনোদন প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৫ জানুয়ারি ২০২৩, ১২:৫৬ এএম

শেয়ার করুন:

আমি না, ঘরে ফিরেছে রাজ: পরীমণি

রাজ-পরীর অভিমান ভেঙ্গেছে। সম্পর্ক নিয়ে গত কয়েক দিনের নাটকীয়তার পর আবার একসঙ্গে হয়েছেন আলোচিত অভিনেত্রী পরীমণি এবং সময়ের জনপ্রিয় অভিনেতা শরিফুল রাজ। বুধবার দিবাগত রাতে ঢাকা মেইলকে পরীমণি নিজেই খবরটি নিশ্চিত করেছেন। 

অভিনেত্রী শিরিন শিলার একটি ফেসবুক পোস্টের সূত্র ধরে পরীমণির সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, ‘রাজ দুই দিন বাইরে থাকার পর আবার ঘরে ফিরে এসেছে। ৩১ ডিসেম্বর ভোরে সে বাসার বাইরে চলে গিয়েছিল। ৩ তারিখ (জানুয়ারি) আবার ফিরে এসেছে।’
 
গত কয়েক দিন ধরে সামাজিক মাধ্যমে রাজ-পরীর পোস্ট থেকে গুঞ্জন উঠেছিল, ভাঙছে তাদের সংসার। বক্তব্য উদ্ধৃত করে বলা হয়েছিল, তাদের সম্পর্ক জোড়া লাগানোর কোনো সম্ভাবনা নেই। কিন্তু এখন পরীমণির কথায় মনে হচ্ছে, আরো দুইদিন আগেই সব মিটমাট করে ফেলেছেন তারা। প্রশ্ন হচ্ছে এই খবরটি কেউ জানলো না কেন? হাসিমুখে পরীমণির উত্তর, ‘এটা সাংবাদিকদের ব্যর্থতা।’


বিজ্ঞাপন


তিনি বলেন, আমি প্রতিদিন রাজের জন্য রান্না করি। ও (রাজ) আমার রান্না ইলিশ মাছ খুব পছন্দ করে। আমরা এখন ভালো আছি। রাজ্য কান্না করছে। পরে এই বিষয়ে কথা বলব।

এর আগে শিরিন শিলা একটি পোস্ট শেয়ার করে লিখেছেন, অভিনন্দন দোস্ত পরীমণি। সব ভুল বুঝাবুঝির অবসান ঘটিয়ে আবার নতুন করে সুখের সংসার গড়ে তোলার জন্য। যারা পরিমণির সংসারে ভাঙন দেখে খুশি হয়েছিলে তারা বিষ খেয়ে মরে যাও কারণ যারা মানুষের সুখ দেখতে পারে না তাদের বেঁচে থাকার কোনও অধিকার নেই। পরী-রাজ, রাজ্যের জয় হোক।  

কয়েদিন আগে খবর বের হয়েছিল, পরীমণি বিচ্ছেদের ঘোষণা দিয়ে রাজের বাসা থেকে বের হয়ে যান। নতুন বছরের প্রথম প্রহরে রোববার ভোর ৫টার দিকে নিজের ফেসবুক অ্যাকাউন্টে এক পোস্টে বিছানা-বালিশে ছোপ ছোপ রক্তের দাগওয়ালা দুটি ছবি পোস্ট করে ইংরেজি নতুন বছরের শুভেচ্ছা জানিয়ে সংবাদ সম্মেলনের ঘোষণা দেন নায়িকা। তিনি লেখেন—‘শুভ নববর্ষ। আগামীকাল সংবাদ সম্মেলন। ’

এর মাঝে রোববার বিকেল ৪টা ৫০ মিনিটে আবার পরীমণি তার নতুন স্ট্যাটাসে রাজের সঙ্গে বিচ্ছেদের বিষয়টি চূড়ান্ত করেন।


বিজ্ঞাপন


এদিকে পরীমণির এই চলে যাওয়ার পেছনে গডফাদারের ইন্ধন দেখছেন রাজ। মঙ্গলবার ভোরে রাজ একটি ফেসবুক পোস্ট দিয়েছেন, যেখানে লিখেছেন, ‘হ্যালো গডফাদারস অ্যান্ড গং। আই ওয়ান্ট টু নো ইউ গাইজ।’ 

আই লিভ ইন ঢাকা, আই উড লাভ টু চিয়ার্স।’ এর অর্থ কী? এ ঘটনার নেপথ্যে কোনো গডফাদার রয়েছেন? নাকি রাজ কোনো গডফাদারের হুমকি পেয়েছেন? চলচ্চিত্রে এমন ঘটনা নিত্যই ঘটে। অভিনেতা সালমান শাহর মৃত্যুর পেছনেও গডফাদারের হাত রয়েছে বলে এখনো অনেকে মনে করেন!  তবে শরিফুল রাজের ভাষ্য, সেই গডফাদারকে ছেড়ে দেবেন না।   

তবে অনেক নাটকীয়তার পরে একই ফ্রেমে পরীমণি ও শরিফুল রাজের দেখা মিলল।

/একেবি/

 

ঢাকা মেইলের খবর পেতে গুগল নিউজ চ্যানেল ফলো করুন

সর্বশেষ
জনপ্রিয়

সব খবর