শাকিবের ব্যক্তিজীবন নিয়ে মাথাব্যথা নেই শাকিবিয়ানদের

বিনোদন প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০১ অক্টোবর ২০২২, ১২:০১ পিএম
শাকিবের ব্যক্তিজীবন নিয়ে মাথাব্যথা নেই শাকিবিয়ানদের
কোলাজ: ঢাকা মেইল

বলা হয়ে থাকে, অনুরাগী ছাড়া একজন তারকার অর্জন শূন্য। আর তাই তাদের মনে জায়গা করে নিতে চলে আপ্রাণ চেষ্টা। একবার যদি জায়গা করে নেওয়া যায়, তাহলে ভালো কিংবা খারাপ— সবসময় তাদের পাশে পাওয়া যায়। তারাই নিঃশ্বার্থভাবে আগলে রাখেন প্রিয় তারকাকে।

শাকিবিয়ানদের কথাই ধরা যাক। অফলাইন হোক আর অনলাইন— তারা সবসময় সুপারস্টার শাকিব খানের বন্দনায় মত্ত থাকেন। কেউ তার সম্পর্কে নেতিবাচক কথা বললে প্রতিবাদে সরব হন। শুধু তাই নয়, ভাইজানের খারাপ সময়ে পাশে থাকেন ছায়ার মতো।

এই যেমন, বুবলীর সঙ্গে গোপন বিয়ে ও সন্তানের খবর প্রকাশ্যে আসতেই শাকিবের সমালোচনায় মুখর হয়ে ওঠেন নেটিজেনরা। অধিকাংশ নেটাগরিক এ নায়কের চরিত্রের ময়নাতদন্ত করছেন কয়েকদিন ধরে। তবে এ ক্ষেত্রে ব্যতিক্রম শাকিবিয়ানরা। আলোচনা-সমালোচনা যাই হোক, তারা এই খারাপ সময়ে ভালোবাসার নায়কের পাশে আছেন। কে কী বললেন— তা নিয়ে মাথা ঘামাচ্ছেন না।

মুনতাসির মুরাদ নামের একজন শাকিবিয়ান বলেন, ‘শাকিব খান বাংলা চলচ্চিত্রের বিগ সুপারস্টার। তাকে নিয়ে আলোচনা, সমালোচনা, তর্ক-বিতর্ক নতুন কিছু নয়। এগুলো গত দেড় দশক ধরেই হচ্ছে। এর কারণ একটাই, তিনি একাই ইন্ডাস্ট্রি লিড দিচ্ছে। অন্যদিকে তার ব্যক্তিগত বিষয়ে কিছু বিতর্ক থাকলেও তিনি কোনো পাপ করেননি। বিয়ে করেছেন, সন্তান জন্ম দিয়েছেন বিষয়টা তো স্বাভাবিক। এসব নিয়ে কী বিতর্ক হলো, কে কী বললেন— তাতে শাকিব ভক্তদের কিছু যায় আসে না। তার পাশে সবসময় ছিলাম, আছি এবং থাকব।’

Shakib Khan

আরেক শাকিব-ভক্ত এনডিএসকে নাঈম বিশ্বের অন্যান্য তারকাদের মধ্যে কেবল শাকিবের ভক্ত। তবে এ নায়কের প্রতি তার একটা আফসোস রয়েছে। এ নিয়ে তিনি বলেন, ‘কেবল ফিল্ম সেলিব্রেটিদের মধ্যে না, পুরো ওয়ার্ল্ড সেলিব্রেটিদের মধ্যে কেবল একজনের ফ্যান হয়েছি। অন্য অনেক সেলিব্রেটি পছন্দ হলেও শাকিবের প্রতি যে ধরনের ফিলিংস কাজ করে, তা আর কারও ক্ষেত্রেই করে না। একমাত্র শাকিবেরই ফ্যান ছিলাম। এখনও আছি, আশা করি সামনেও থাকব। যদিও সারাজীবন একটা আফসোস থেকে যাবে যে, শাকিব তার ভক্তদের ভালোবাসার মূল্যায়ন করতে শিখলেন না এখনও। তাতে কী! তবুও ভালোবাসি তাকে।’

এদিকে মানুষের কথায় কান দিতে চান না সারোয়ার হোসেন রনি। তিনি বলেন, ‘মানুষ অনেক কথা বলবে, তাতে কী আসে যায়? তিনি কোনো অপরাধ করেননি যে তার প্রতি ভালোবাসা কমে যাবে। বিয়ে করে বাচ্চা নিয়েছেন। যারা এসব সমালোচনা করছেন তাদের নিজের দিকে কেউ তাকাই না তারা আগেও সমালোচনা করতেন, এখনও করছেন এবং ভবিষ্যতেও করবেন। তাই বলে কী আমরা তাকে ভালোবাসব না? আমাদের তার প্রতি আগেও ভালোবাসা ছিল, এখনও আছে এবং থাকবে। আমাদের চাওয়া এসব সমালোচনার জবাব দিয়ে শাকিব ভালো কাজ উপহার দিক।’

ব্যক্তিগত জীবন নয়, অভিনয়ের কারণেই শাকিবকে ভালোবাসেন ইমরুল হাসান অনিক। তিনি বলেন, ‘আমি শাকিবের সিনেমা দেখে বড় হয়ছি। তার পারসোনাল লাইফ দেখে না। তিনি কয়টা বিয়ে করলেন— সেটা তার একান্ত ব্যক্তিগত। এসব টেনে যারা শাকিবের ভক্ত থেকে সরে যাবেন, আমি মনে করি তারা কোনো কালেই শাকিবের ভক্ত ছিলেন না। ভক্ত হতে হলে তারকার বিপদে পাশে থাকা উচিত। পরিশেষে এটাই বলব, খান সাহেব আপনি সব সমালোচনা পাশ কাটিয়ে ভালো মুভি উপহার দেন আমাদের। আপনার কাছে আমরা দিনশেষে ভালো মানসম্মত কাজ চাই।’

Shakib Bubly

সব মানুষ তাদের জীবদ্দশায় কিছু না কিছু ভুল করেন। হয়তো শাকিবও সেটা করেছেন। সেজন্য তাকে নেতিবাচক উপস্থাপন করা উচিত নয় বলে মনে করেন ডিএইচ পলাশ। তিনি বলেন, ‘সেলিব্রেটিরাও রক্ত-মাংসে গড়া মানুষ। তাদেরও ভুল-ত্রুটি হয়। তা ছাড়া মানুষের আগ্রহ যেহেতু বেশি তাদের নিয়ে, তাই মিডিয়ায় নেগেটিভ খবরগুলোও চর্চিত হয়। একজন শাকিব খানকে সিনেমার নায়ক হিসেবেই ভালবেসেছি। বিটিভিতে সেই শৈশবের সিনেমা দেখার পর থেকে তার ভক্ত হয়েছি। স্কুল-কলেজ পার করে বিশ্ববিদ্যালয়ে এসেও ভালোবাসাটা রয়ে গেছে। মাঝে মাঝে প্রিয় তারকার আলোচনা-সমালোচনা করে গেছি। কিন্তু ভালোবাসার কমতি হয়নি কখনও। একজন শাকিবকে নিয়ে এখনও স্বপ্ন দেখি, তার আরও অনেক কিছু দেওয়ার আছে। যেন আজ থেকে ২০ বছর পরেও সমগ্র বাঙালি বলেন, আমাদেরও একজন শাকিব খান আছেন।’

অন্যদিকে শাকিব-ভক্ত জাকির হোসেন মনে করেন, শাকিবের উচিত সংসারে স্থির হওয়া। তাহলে এসব নিয়ে আর বিতর্ক হবে না। তিনি বলেন, ‘শাকিব খানের ব্যক্তিগত জীবন নিয়ে মাথাব্যথা নেই। তবে তার উচিত পরিবার নিয়ে স্থির হওয়া। শাকিবের খারাপ সময়ে ভক্তরা সবসময়ই পাশে ছিল। এবারও তার ব্যতিক্রম হবে না। ভক্তরা সবসময়ই শাকিব খানের পাশে থাকবেন। কে কী বললেন, এগুলো ভক্তরা গোনায় ধরেন না।  শাকিবেরও উচিত ভক্তদের কথা মাথায় রেখে কাজ করা। ভক্তরা তার কাছ থেকে মানসম্মত সিনেমা চায়। এখন শাকিব খানের উচিত ভক্তদের মূল্যায়ন করা। ভালো কাজ দিয়ে সবাইকে জবাব দেওয়া।’

ব্যক্তিজীবনের কারণে শাকিবের বিচার করা বোকামি বলে মনে করেন মাহফুজ আনাম শাহীন। তিনি বলেন, ‘শাকিবকে পছন্দ করি। ভালোবাসি তার কর্মশক্তির কারণে। ব্যক্তিগত জীবন নিয়ে তাকে জাজ করা বোকামি। কারণ, শাকিব কোনো রাজনৈতিক নেতা নন। তার প্রথম পরিচয়, তিনি একজন অভিনেতা। আমাদের একমাত্র সুপারস্টার অভিনেতা। তাকে মূল্যায়ন করব অভিনয় দিয়ে, ব্যক্তিগত ইস্যু নিয়ে নয়। যারা তার ব্যক্তি-স্বাধীনতার ওপর আঘাত করছেন, তারা কাণ্ডজ্ঞানহীন নির্বোধ।’

Sk

এই ভক্ত আরও বলেন, ‘শাকিব অর্ধশতাধিক নায়িকার সঙ্গে অভিনয় করেছেন, তাদের সঙ্গে কোনো অপ্রীতিকর ঘটনা ঘটেনি। তাহলে তাকে ভালো না বেসে উপায় কী! ১৯৯৯ সাল থেকেই শাকিবের ছবি দেখে আসছি। যতদিন তিনি থাকবেন ততদিন দেখব। আর ভালোবাসাটা তার প্রস্থানেও সীমাবদ্ধ নয়, আজীবনের জন্য। তার ভালো খারাপ, সবসময় পাশে আছি, থাকব।’

আশরাফুল ইসলাম নাঈম বলেন, ‘শাকিব খানকে চিনি আমরা সিনেমার মাধ্যমে। তার অভিনয়ের কারণে ভালোলাগে। তাই তিনি ব্যক্তিজীবনে কী করলেন, সেটা নিয়ে মাথা ঘামাতে চাই না। তবে এটা ঠিক যে, পৃথিবীর সব মানুষ পারফেক্ট নন। শাকিবের ব্যক্তিজীবনে কিছু ভুল আছে। দুইবার বিয়ে করে গোপন রাখার বিষয়টি ভালো লাগেনি। সবাইকে জানিয়ে করলে আমরা ভক্তরা আনন্দ করতাম। আবার এই ইস্যুটা নিয়ে মানুষ যেভাবে ট্রল করছেন, সেটা পুরোপুরি নোংরামি। আমি মনে করি, এসব ট্রলের জবাব দিতেই শাকিবিয়ানরা তার ছবি আরও বেশি করে দেখবেন। আমরা সবসময় শাকিব খানের পাশে আছি।’

শাকিবিয়ানদের এসব কথায় প্রতীয়মান হয় যে, তর্ক-বিতর্কের ঊর্ধ্বে গিয়ে তারা শাকিবের পাশে থাকবেন। এটাকেই তারা তাদের জীবনের অন্যতম স্বার্থকতা বলে মনে করছেন।

/আরএসও