মঙ্গলবার, ২৩ জুলাই, ২০২৪, ঢাকা

শাকিব খানের মধ্যে যথেষ্ট ভালো সেন্স অব হিউমার আছে: নাবিলা 

রাফিউজ্জামান রাফি
প্রকাশিত: ০৫ জুন ২০২৪, ০৫:২২ পিএম

শেয়ার করুন:

শাকিবের মধ্যে যথেষ্ট ভালো সেন্স অব হিউমার আছে: নাবিলা 

সমসাময়িকদের সঙ্গে তুলনা করলে অভিনেত্রী মাসুমা রহমান নাবিলার কাজের সংখ্যা কম। তবে যা আছে সেসবের একেকটি অন্যদের এক শ কাজের সমান। উদাহরণের টেবিলে ‘আয়নাবাজি’ রাখলেই মন্তব্য নিষ্প্রয়োজন। সুপারস্টার শাকিব খানের ‘তুফান’-এ তার সংযোজনের কথা শুনেই অনেকে নিশ্চিত হয়েছিলেন আবারও আলো ছড়াবেন তিনি। 

তবে একের পর এক প্রকাশিত পোস্টার, টিজ, গানে দেখা না পেয়ে নাবিলার শুভাকাঙ্ক্ষীদের তর সইছিল না। মুখিয়ে ছিলেন তারা। অবশেষে অপেক্ষা ফুরিয়েছে। সম্প্রতি ছবির পোস্টারে দেখা গেছে তাকে। এতে বেশ উচ্ছ্বসিত তার শুভানুধ্যায়ীরা। তিনিও আন্দাজ করেছিলেন পোস্টার নিয়ে আলোচনা হবে। ঢাকা মেইলকে জানালেন সে কথা। উচ্ছ্বসিত নাবিলা বলেন, ‘এর আগে সিনেমাটির যতগুলো কন্টেন্ট বেরিয়েছে টিজার, পোস্টার, গান সবই আলোচিত ছিল। এই পোস্টারও যে আলোচনায় আসবে বোঝা যাচ্ছিল।’


বিজ্ঞাপন


447199575_7867760636580585_2938389516332091267_n

মুহূর্তেই ছড়িয়ে পড়েছে পোস্টারটি। বিষয়টি কেমন লেগেছে— জানতে চাইলে অভিনেত্রী বলেন, ‘ভালো লেগেছে। কারণ সবারই প্রশ্ন ছিল আমাকে কোথাও দেখা যাচ্ছে না কেন? আমার কোনো পোস্টার আসছে না কেন? যেখানেই যেতাম সেখানেই এই প্রশ্নের সম্মুখীন হতে হয়েছে। তারা আমাকে পোস্টারে দেখতে পেরেছেন। এটা ভালো লেগেছে।’

শাকিব খানের নামের ওপর ছবি চলে। এ কারণে তার ছবির অন্য অভিনয়শিল্পীরা চাপমুক্ত থাকেন। অন্যদিকে মেগাস্টারের সঙ্গে স্ক্রিন শেয়ার করাটা চাপ বটে। ওই জায়গা থেকে নাবিলা চাপমুক্ত নাকি চাপযুক্ত ছিলেন— জানতে চাইলে বলেন, ‘সত্যি বলতে আমি চাপযুক্ত থাকলেও আমার কাজ ভালো হয়। চাপমুক্ত থাকলেও ভালো হয়। দুটোর মধ্যে ভারসাম্য বজায় ছিল আমার। তবে নার্ভাসনেস অবশ্যই ছিল।চ যেকোনো নতুন কাজ শুরু করতে গেলে এরকম হয়। তার ওপর আমি অনেকদিন পরপর কাজ করি। অভ্যাসের যে ব্যাপারটা থাকে সেটাও অনভ্যাসে পরিণত হয়। পারব কিনা তা নিয়ে দ্বিধা থাকে। তবে আমি আবার সাইকোলজিক্যালি নিজেকে মোটিভেট করতে পারি। এখানেও তাই করেছি। চাপ না নিয়ে কাজটি যেন করতে পারি সেভাবে মানসিকভাবে প্রস্তুতি নিয়েছিলাম।’ 

শাকিব খানের সঙ্গে কাজের অভিজ্ঞতা ভালো। এরকম উল্লেখ করে তিনি বলেন, ‘শাকিব খানের সঙ্গে আমার কাজের অভিজ্ঞতা খুবই ভালো। সে একজন সুপারস্টার মেগাস্টার। তবে নিজেকে চাপ মুক্ত রাখতে এই বিষয়টি এড়িয়ে যেতে চেষ্টা করেছি। দেখবেন অনেকেই আমাকে নানান সময় বলেছেন ওনার কথা বলার সময় নামের সঙ্গে ‘সুপারস্টার’ ‘মেগাস্টার’ শব্দগুলো যুক্ত করিনি কেন। তিনি অবশ্যই সুপারস্টার, মেগাস্টার। এতে কোনো সন্দেহ নেই। কিন্তু আমি যদি সব সময় তাকে এভাবে ভাবতে থাকতাম তাহলে আমার ভেতর চাপ সৃষ্টি হতো। কাজ করতে গিয়ে আমি হয় ভয় পেতাম নাহয় নার্ভাস হতাম। সেটা কাটানোর জন্যই নিজেকে এভাবে প্রস্তুত করছিলাম।’ 


বিজ্ঞাপন


327435635_5662858233842120_6657056444729832847_n_(1)

নাবিলা আরও বলেন, ‘কাজটিতে যুক্ত হওয়ার পর আমাকে সবাই বলেছে শাকিব খানের সঙ্গে কাজ করছেন। কেমন লাগছে। আমি বলতাম, মানুষটাকে সামনে থেকে দেখিনি। জানি না তিনি কেমন। তবে আমি ভেবে নিতে চাই তিনি একজন ভালো মানুষ। সে অবশ্যই ভালো মানুষ। কেননা একজন ভালো মানুষই ভালো আর্টিস্ট হতে পারে। কিন্তু নিজেকে এভাবে বোঝানোর কারণ আমার যেন ওনার সঙ্গে কাজ করতে সহজ হয়। ঠিক এই মানসিকতা নিয়েই ওনার সাথে কাজ করতে গেছি।’ 

নিজেকে মানসিকভাবে এভাবে তৈরি করার কারণ ব্যাখ্যা করে অভিনেত্রী আরও বলেন, ‘আমি নিয়মিত কাজ করি না। কিন্তু শাকিব খান নিয়মিত। নতুদের পাশাপাশি অনেক শিল্পীর সঙ্গে কাজ করার অভ্যাস আছে তার। আমার সেই অভ্যাসটা নেই। কাজটি যেন সহজ হয় সেকারণে নিজেকে এভাবে তৈরি করেছি।’ 

তবে কাজ করে বুঝেছেন অভিনেতার পাশাপাশি ব্যক্তি হিসেবে আগাগোড়া ভালো মানুষ শাকিব। তার কথায়, ‘কাজ করার পর দেখেছি আসলেই উনি ভালো মানুষ। দুই-তিন সপ্তাহ কাজ করে তাকে আমাদের মতোই স্বাভাবিক মানুষ মনে হয়েছে। ওনার মধ্যে যথেষ্ট ভালো সেন্স অব হিউমার আছে। আমার সঙ্গে শটের মাঝে মাঝে অল্প একটু কথা হতো, গল্প হতো। তাতে কাজ করতে সহজ হয়েছে। তার সঙ্গে কাজ করার অভিজ্ঞতা আমার খুবই ভালো ছিল।’

এর আগে মনে রাখার মতো কাজ উপহার দিয়েও আড়ালে চলে গেছেন নাবিলা। ক্যামেরার সামনে দাঁড়াননি নিয়মিত। এবার কি নিয়মিত হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে? জবাবে বলেন, ‘‘আমার পরবর্তী সিনেমা ‘বনলতা সেন’। গত বছর করেছি। এ বছর মুক্তি পাওয়ার কথা। এরপর কী হবে জানি না। আমি বরাবরই কাজ করতে চেয়েছি। হয়তো ভালো কাজ আমার পর্যন্ত আসছিল না। সে কারণেই আমাকে দেখা যায়নি। সুযোগ হলে আমাকে অবশ্যই পাওয়া যাবে। কাজ করার জন্য বসে আছি। নিয়মিত করতে চাই।’’ 

399505056_7005852259438098_9180281423586043366_n

‘তুফান’ কেন দেখবেন দর্শক— কয়েকটি কারণ জানালেন নাবিলা। তিনি বলেন, ‘‘প্রথমত সিনেমাটি শাকিব খানের। এ কারণে বড় একটি দর্শক গোষ্ঠী ‘তুফান’ দেখতে যাবে। কারণ তার বড় একটি ভক্তগোষ্ঠী আছে। দ্বিতীয়ত রায়হান রাফী একজন তারকা নির্মাতা। ওনার ওপর দর্শকের আস্থা আছে। তারও একটি ভক্তগোষ্ঠী তৈরি হয়ে গেছে। এটি আরেকটি কারণ। এছাড়া সিনেমাটি যেভাবে ডিজাইন করা হয়েছে গল্প, মেকিং থেকে শুরু করে সবাই বুঝতে পারছেন অন্যরকম কিছু হতে যাচ্ছে। সে কারণে দেখতে যাবে। এর আগে এরকম কিছু হয়তো অন্য কোথাও দেখেছেন। আমি বলব না যে দেখেননি। তবে বাংলাদেশে এরকম সিনেমায় এর আগে হয়নি। ছবিটি দেখে সবাই বুঝবেন আমরাও এরকম চাইলে পারি।’’ 

নব্বই দশকের গ্যাংস্টারের গল্প দেখা যাবে ‘তুফান’-এ। এতে শাকিব-নাবিলা ছাড়াও অভিনয় করেছেন টলিউডের মিমি চক্রবর্তী এবং বাংলাদেশের চঞ্চল চৌধুরী, মিশা সওদাগর প্রমুখ। দেশের দুই প্রযোজনা প্রতিষ্ঠান আলফা আই ও চরকির সঙ্গে ছবিটি প্রযোজনা করেছে কলকাতার এসভিএফ। ছবিটি পরিচালনা করেছেন রায়হান রাফী।

ঢাকা মেইলের খবর পেতে গুগল নিউজ চ্যানেল ফলো করুন

সর্বশেষ
জনপ্রিয়

সব খবর