রোববার, ২১ এপ্রিল, ২০২৪, ঢাকা

‘অন্তর্জাল’ দেখলে বুঝবেন বাংলা সিনেমা এগিয়ে গেছে: সিয়াম

রাফিউজ্জামান রাফি
প্রকাশিত: ২৩ সেপ্টেম্বর ২০২৩, ০৬:৪২ পিএম

শেয়ার করুন:

‘অন্তর্জাল’ দেখলে বুঝবেন বাংলা সিনেমা এগিয়ে গেছে: সিয়াম

ঢালিউড অভিনেতা সিয়াম আহমেদ অনেকটা জলের মতো। যখন যে চরিত্রে রাখা হয় সেই চরিত্রেই মিশে যান। ‘পোড়ামন-২’ -এর সুজন, ‘দহনে’র তুলা, ‘দামালে’র দুর্জয়, কিংবা ‘শান’ তারই প্রমাণ। গতকাল শুক্রবার মুক্তিপ্রাপ্ত ‘অন্তর্জাল’ ছবিতেও নতুন এক চরিত্রে হাজির হয়েছেন তিনি। সাইবার ক্রাইম নিয়ে নির্মিত চলচ্চিত্রটিতে তাকে দেখা গেছে প্রোগ্রামারের চরিত্রে।

সদ্য মুক্তিপ্রাপ্ত ছবিটির জন্য দর্শকের থেকে কেমন সাড়া পাচ্ছেন— জানতে চাইলে সিয়াম ঢাকা মেইলকে বলেন, ‘গতকাল ও আজ মিলে যে কয়েকটি প্রেক্ষাগৃহে গিয়েছি সবগুলো মোটামুটি হাউজফুল ছিল। এখানে গুরুত্বপূর্ণ হচ্ছে ছবিটি দেখে দর্শক কী ফিডব্যাক দিচ্ছেন। এর ওপর নির্ভর করছে সিনেমাটির ভবিষ্যৎ। এ ধরণের গল্প, মেকিং এর আগে হয়তো আমাদের স্ক্রিনে দেখিনি। আমরা সবাই মিলে চেষ্টা করছি যেন বিষয়টি একটি নতুন ফ্লেভার যোগ করে। সেটা হয়েছে। ছবির সঙ্গে দর্শক নিজেদের শতভাগ যুক্ত করতে পেরেছেন। আমাদের চেষ্টাকে সাধুবাদ জানাচ্ছেন, তাদের ভালো লাগার জায়গাগুলো বলছেন, কোন কোন জায়গাগুলো আরও ভালো করা যেত সে বিষয়েও মতামত দিচ্ছেন। এটা কিন্ত ফিল্ম মেকিংয়ের একটি অংশ। তবে দর্শকের এই প্রতিক্রিয়ায় আমাদের পুরো টিম অনেক বেশি উৎসাহিত। ছবিটি কোনো উৎসবে মুক্তি পেলে হয়তো বড় কিছু হতো। সাধারণ একটি সাধারণ সময়ে মুক্তি পেয়ে এ ধরণের সাড়া পাওয়া আমাদের চলচ্চিত্রশিল্পের জন্য খুবই ইতিবাচক।’


বিজ্ঞাপন


lumin

‘অন্তর্জালে’ সিয়ামের চরিত্রের নাম লুমিন। সে একজন প্রোগ্রামার। চরিত্রটি পর্দায় উপস্থাপন করতে প্রস্তুতি কেমন ছিল— প্রশ্নটি ছুড়ে দিলে পর্দার লুমিন বলেন, লম্বা সময় ধরে প্রস্তুতি নিতে হয়েছে। শুধুমাত্র লুমিন ক্যারেক্টারের জন্য টেকনিক্যাল টার্ম জানাটাই মূল উদ্দেশ্য ছিল না। লুমিনের সবচেয়ে কাছের ফ্যামিলি মেম্বার হচ্ছে টোটো। ওর কুকুর। মানুষের সঙ্গে অভিনয় করা আর অন্য প্রাণীর সঙ্গে অভিনয় করার তফাৎ রয়েছে। কেননা মানুষকে ডিরেকশন দেওয়া গেলেও তাদের আপনি ডিরেকশন দিতে পারবেন না। তাদের আপন হতে হবে। টোটোর সঙ্গে সম্পর্ক সহজ করতে আমি রাজশাহীতে লোকেশন রেকি করতে গেছি। যেটা আজ পর্যন্ত কোনো সিনেমায় করিনি। ডিরেক্টর, টিম, আর্ট ডিপার্টমেন্টের সঙ্গে একসঙ্গে রাজশাহী গেছি। যেখানে আমার বাড়িঘর হবে, আমি থাকব। প্রত্যেকটি জায়গা আগে ঘুরে এসেছি, কিছুক্ষণ থেকেছি, মানুষের সঙ্গে কথা বলেছি।’

একজন সাইবার স্পেশালিষ্টের চরিত্র ফুটিয়ে তোলাটাও চ্যালেঞ্জের ছিল উল্লেখ করে তিনি বলেন, ‘আরেকটি চ্যালেঞ্জের বিষয় হচ্ছে এখানে এমন একটি চরিত্রে অভিনয় করেছি যে একজন সাইবার স্পেশালিষ্ট। চরিত্রটি ফুটিয়ে তোলার জন্য টেকনিক্যাল টার্মসহ সবকিছু বিস্তারিত জানা দরকার। নইলে এটা বিশ্বাসযোগ্য করে তোলা সম্ভব না। কারণ তাদের নিজেদের মধ্যে কথা বলার একটি ভাষা আছে। একজন প্রোগ্রামার যখন অন্যদের সঙ্গে যখন কথা বলে তখন স্বাভাবিক। কিন্তু যখন দুজন প্রোগ্রামার কথা বলে তখন তাদের ভাষা বদলে যায়। যেমন দুজন চিকিৎসক, প্রকৌশলী, আইনজীবীরর বেলায় হয়। কেননা প্রত্যেক পেশা আলাদা। তাদের ভাষাও আলাদা। নিজেদের কিছু বিষয় থাকে। সেটা আয়ত্ত্ব করা আমার কাছে বেশ চ্যালেঞ্জিং ছিল। সবসময় মাথায় ছিল, যখন একজন প্রোগ্রামার বা আইটি বিশেষজ্ঞ সিনেমাটি দেখবেন তিনি যেন মনে করেন লুমিন তাদেরই একজন।’

381571745_780312290565511_318854743679079418_n


বিজ্ঞাপন


কোরবানি ঈদে মুক্তি পাওয়ার কথা ছিল ‘অন্তর্জাল’। একাধিকবার মুক্তির তারিখ পেছানোয় সেটি সম্ভব হয়নি। এছাড়া দেশের প্রেক্ষাগৃহে শাহরুখ খান ‘জাওয়ানে’র আগমনও বিরক্ত করেছে বাংলাদেশের প্রথম সাইবার থ্রিলার চলচ্চিত্রটিকে। 

এই বিলম্ব ছবিটির ওপর কোনো প্রভাব ফেলেছে কী— জবাবে সিয়াম বলেন, ‘‘মুক্তি পেছানোয় একটা জিনিস ভালো হয়েছে। আপনি যদি আমাদের সিনেমাটি দেখেন খেয়াল করবেন, ভিফিএক্স যতটুকু ভালো করা সম্ভব আমরা করেছি। যদি নির্ধারিত তারিখে মুক্তি পেত তাহলে আমি বলতে পারি এখন যেটা হয়েছে সেটা হতো না। দর্শক এখন যে ‘অন্তর্জাল’ দেখছেন শেষ পর্যন্ত সেটাই মনে রাখবেন। কবে মুক্তি পেল মনে রাখবেন না।’’

siam

এ ছবিতে সিয়ামের বিপরীতে অভিনয় করেছেন জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কারপ্রাপ্ত অভিনেত্রী সুনেরাহ বিনতে কামাল। তার সঙ্গে রসায়নটা কেমন ছিল— উত্তরে ‘দামালে’র দুর্জয় বলেন, ‘সুনেরাহ বন্ধু মানুষ, তার সঙ্গে কাজ করতে অনেক আরাম হয়েছে। বোঝাপড়াটা আগে থেকেই ছিল। এ কারণে দেখা গেছে কিছু বিষয় সহজ হয়ে গেছে। যেমন আমি এটা করছি, তুই কী করবি। অথবা তোর কাছে কোনো ভালো পরামর্শ থাকলে দিতে পারিস। এভাবেই কাজটা হয়েছে।’

প্রতিটি সিনেমায় বিশেষ কিছু দিক থাকে। যেগুলো দর্শকদের প্রেক্ষাগৃহে টানে। ‘অন্তর্জাল’-এর সেই বিশেষ দিক কী, কিংবা কেন ‘অন্তর্জাল’ দেখতে হলে যাবেন দর্শক— এমন প্রশ্নের উত্তরে জনপ্রিয় এ তারকা বলেন, ‘বাংলাদেশের সিনেমা হলে এই গল্প প্রথম। এ গল্প দেখলে দর্শক অনুধাবন করবেন বাংলা সিনেমা একধাপ আবার সামনে এগিয়ে গেল। সেটা উপলব্ধি করতে হলে সিনেমা হলে যেতে হবে। কেননা এই গল্প বাসায় বসে টিভি পর্দায় বা ওটিটিতে দেখার গল্প না। এটা পুরোপুরি সিনেমা হলের জন্য।’

dip

বাংলাদেশের প্রথম সাইবার থ্রিলার চলচ্চিত্র ‘অন্তর্জাল’। চলচ্চিত্রটির প্রযোজনা প্রতিষ্ঠান মোশন পিপল স্টুডিও। গল্প লিখেছেন দীপংকর দীপন, সাইফুল্লাহ রিয়াদ ও আশা জাহিদ। সংলাপ লিখেছেন সাইফুল্লাহ রিয়াদ। চিত্রনাট্য করেছেন পরিচালক নিজেই। সিয়াম ছাড়াও অভিনয় করেছেন বিদ্যা সিনহা মিম, এবিএম সুমন, সুনেরাহ বিনতে কামাল প্রমুখ। দেশ-বিদেশে রেকর্ড সংখ্যক হলে মুক্তি পেয়েছে এ ছবি।

আরআর 

ঢাকা মেইলের খবর পেতে গুগল নিউজ চ্যানেল ফলো করুন

সর্বশেষ
জনপ্রিয়

সব খবর