চবির মূল ফটকে তালা দিলেই দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি

বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ২২ সেপ্টেম্বর ২০২২, ০৩:০১ পিএম
চবির মূল ফটকে তালা দিলেই দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি

চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের (চবি) মূল ফটকে তালা লাগানো ও শাটল ট্রেন আটকে দেওয়াসহ বিশ্ববিদ্যালয়ের কার্যক্রমে বিঘ্ন ঘটালে সংশ্লিষ্টদের বিরুদ্ধে শাস্তিমূলক ব্যবস্থা নিবে কর্তৃপক্ষ। 

বৃহস্পতিবার (২২ সেপ্টেম্বর) ভারপ্রাপ্ত রেজিস্ট্রার এস এম মনিরুল হাসান স্বাক্ষরিত এক বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়। 

বিজ্ঞপ্তিতে উল্লেখ করা হয়, ‘সম্প্রতি বিভিন্ন ইস্যুকে কেন্দ্র করে শিক্ষার্থীরা যখন-তখন বিশ্ববিদ্যালয়ের মূল ফটক ও পরিবহন দফতরসহ অন্যান্য গুরুত্বপূর্ণ অফিস বন্ধ করে দিচ্ছে। ফলে বিভিন্ন বিভাগ ও ইনস্টিটিউটের পূর্বনির্ধারিত ক্লাস, পরীক্ষা ও সেমিনার আয়োজনে মারাত্মক সমস্যার সম্মুখীন হতে হচ্ছে। এছাড়া ক্যাম্পাসে আগত শিক্ষক, শিক্ষার্থী, কর্মকর্তা, কর্মচারী এবং সেবাপ্রার্থীদেরও খুবই সমস্যায় পড়তে হয়।’

বিজ্ঞপ্তিতে আরও উল্লেখ করা হয়, ‘এতে বিশ্ববিদ্যালয়ের ভাবমূর্তি ক্ষুন্ন হয়, কর্মঘণ্টা নষ্ট হয় এবং সেশনজটমুক্ত করার লক্ষ্যে গৃহীত পদক্ষেপ বাধাগ্রস্থ হয়। সুতরাং, কেউ যদি বিশ্ববিদ্যালয়ের একাডেমিক ও প্রশাসনিক কার্যক্রমে বিঘ্ন ঘটায, তাহলে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ সংশ্লিষ্টদের বিরুদ্ধে শৃঙ্খলাবিরোধী কাজে জড়িত থাকার অভিযোগে যথাযথ শাস্তিমূলক ব্যবস্থা গ্রহণ করবে।’

ভারপ্রাপ্ত রেজিস্ট্রার এস এম মনিরুল হাসান বলেন, ‘বেশ কিছুদিন ধরে যেকোনো ঘটনাকে কেন্দ্র করেই বিশ্ববিদ্যালয়ের মূল ফটক ও শাটল ট্রেন আটকে দিয়ে একাডেমিক ও প্রশাসনিক কার্যক্রমে বাধা সৃষ্টি করছে একদল শিক্ষার্থী। এতে বিশ্ববিদ্যালয়ের সাধারণ শিক্ষার্থীসহ শিক্ষক, কর্মকর্তা, কর্মচারী ও স্থানীয়দের ব্যাপক সমস্যার সম্মুখীন হতে হচ্ছে। এখন থেকে কেউ এমন করলে তার বিরুদ্ধে দৃষ্টান্তই শাস্তির ব্যবস্থা করা হবে।’

উল্লেখ্য, বিভিন্ন দাবি-দাওয়াকে কেন্দ্র করে শুধু এবছরেই চবির মূল ফটকে ১০ বারেরও বেশি তালা লাগানো হয়েছে। ৩ বার শাটল ট্রেন অবরোধ, ১ বার শাটল ট্রেনের চালক অপহরণ ও ১ বার পরিবহন দফতরেও তালা ঝুলিয়েছে বিক্ষোভকারীরা। 

প্রতিনিধি/এইউ