‘গণতন্ত্র মঞ্চের সংগঠকদের বোঝা বড় দায়’

নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ১৪ আগস্ট ২০২২, ০৬:৫৭ পিএম
‘গণতন্ত্র মঞ্চের সংগঠকদের বোঝা বড় দায়’

গণতন্ত্র মঞ্চের সংগঠকদের বোঝা বড় দায় বলে মন্তব্য করেছেন শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি। তিনি বলেন, সামনে নির্বাচন আসলেই কিছু লোকজন আসে তাদের জোট হয়, তার মধ্য থেকে আবার জট হয়। তারপর তারা আবার নির্বাচনে যায় না। নানা রকম কিছু হয়। এরকম খেলা আমরা বহুবছর ধরে দেখছি এটা নতুন কিছু না। গত নির্বাচনে তারা আরেক জোট নিয়ে হাজির হয়েছিল।

রোববার (১৪ আগস্ট) বাংলাদেশ প্রগতিশীল কলামিস্ট ফোরামের আয়োজনে ‘অশ্রুঝরা আগস্টে শোক সঞ্জাত শক্তির অন্বেষা’ শীর্ষক সেমিনারে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন। 

তিনি বলেন, এখন কি একটা মঞ্চ হয়েছে, নাম গণতন্ত্র মঞ্চ। সেখানো যে নাম গুলো দেখছি তারা আর গণতন্ত্র মঞ্চ এই দুটোকে মেলানো বড় কঠিন। যাই হোক আমরা গণতন্ত্রে বিশ্বাস করি, যেকোন দল জোট সব কিছু হতে পারে। 

শিক্ষামন্ত্রী বলেন, বঙ্গবন্ধুকে হত্যার পেছনে দেশী ও বিদেশি ষড়যন্ত্র ছিল। তাকে হত্যা করা হবে তিনি জানতেন,  তবে বিশ্বাস করতেন না। তিনি মনে করতেন, বাঙালিরা তাকে কখনও হত্যা করতে পারে না। তারপরও তার গড়া স্বাধীন দেশে তাকে হত্যা করা হল।

বিদেশি ষড়যন্ত্রের কারণ হিসেবে মন্ত্রী বলেন, তখন বঙ্গবন্ধুর জনপ্রিয়তা আকাশ ছোঁয়া। বিশ্বের মানুষ বাংলাদেশকে না চিনলেও বঙ্গবন্ধুকে ছিনত। বঙ্গবন্ধুর বিপক্ষের বিশ্ব মোড়লরা তাকে থ্রেড হিসেবে মনে করত।

ঘাতকরা বঙ্গবন্ধুকে নির্বংশ করার চেষ্টা করেছিল উল্লেখ করে দীপু মনি বলেন, তারা বঙ্গবন্ধুর রক্তকে ভয় পেত। তারা মনে করত বঙ্গবন্ধুর রক্তের কেউ বেচেঁ থাকলে তারা ফের দেশকে বঙ্গবন্ধুর আদর্শে নিয়ে যাবে। দেশে না থাকার কারণে ভাগ্যক্রমে বেচেঁ যান বঙ্গবন্ধুর মেয়ে শেখ হাসিনা ও শেখ রেহানা। শেখ হাসিনা এখন বাবার আদর্শকে বহন করে দেশকে উন্নয়নের মহাসড়কে নিয়ে গেছেন। তিনি তার বাবার মতো যা বলেন তা করেন।  তাই তাকেও ২১ বার হত্যার চেষ্টা করেছে ওই স্বাধীনতা বিরোধীচক্র।

সেমিনারে প্রগতিশীল কলামিস্ট ফোরামের সভাপতি ও জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক ভিসি অধ্যাপক ড.মীজানুর রহমানের সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক অধ্যাপক ড. মিল্টন বিশ্বাসের পরিচালনায় বিশেষ অতিথির বক্তব্য দেন, নর্থ-সাউথ বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিসি অধ্যাপক ড. আতিকুল ইসলাম, জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিসি অধ্যাপক ড.মশিউর রহমান, জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলাম বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিসি অধ্যাপক ড. সৌমিত্র শেখর, বাংলাদেশ কলেজ বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষক সমিতির সভাপতি অধ্যাপক মো. আবদুর রশীদ, বাংলাদেশ প্রগতিশীল কলামিস্ট ফোরামের সহ-সভাপতি অধ্যাপক ড. রাশিদ আসকারী। সেমিনারে মূল প্রবন্ধ পাঠ করেন প্রবীণ সাংবাদিক ও কলামিস্ট বিভু রঞ্জন সরকার।

এসএএস/ একেবি