সোমবার, ১৭ জুন, ২০২৪, ঢাকা

কাঁচাবাজারে রোজার উত্তাপ

নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ২৪ মার্চ ২০২৩, ০৩:০০ পিএম

শেয়ার করুন:

কাঁচাবাজারে রোজার উত্তাপ

রমজানকে কেন্দ্র করে দ্রব্যমূল্য কম-বেশি বাড়ে প্রায় প্রতি বছরই। তবে এবারের মতো অস্বাভাবিক হারে বাড়ার কথা কেউ মনে করতে পারছেন না। দাম বাড়েনি এমন কোনো পণ্যের কথা মনে করতে পারছেন না দোকানিরা। রমজানের শুরুতেই দামের উত্তাপ ছড়িয়ে পড়েছে কাঁচাবাজারে। কোনো কোনো সবজির দাম বেড়ে দ্বিগুণ হয়ে গেছে।

শুক্রবার (২৪ মার্চ) রাজধানীর মালিবাগ কাঁচাবাজারে ঘুরে দেখা গেছে, বেগুনের কেজি বিক্রি হচ্ছে ১০০ টাকা দরে। এক সপ্তাহ আগেও এই বেগুন বিক্রি হয়েছে ৭০ টাকা দরে। শসার কেজি বিক্রি হচ্ছে ৮০ টাকা দরে। কেজিপ্রতি সপ্তাহের ব্যবধানে বেড়েছে ২০ টাকা। এছাড়া বড় সাইজের এক হালি লেবু (এলাচি) বিক্রি হচ্ছে ১০০ টাকায়। অর্থাৎ একটি লেবুর কিনতে হলে ক্রেতাকে গুনতে হচ্ছে ২৫ টাকা।


বিজ্ঞাপন


মাঝারি সাইজের (একাচি) লেবুর হালি ৮০ টাকা দরে বিক্রি হচ্ছে। অর্থাৎ একটি লেবুর দাম ২০ টাকা। কাগজি লেবুর দর প্রতি হালি ৬০ টাকা দরে বিক্রি হচ্ছে। অর্থাৎ একটি কাগজি লেবুর দাম ১৫ টাকা।

এছাড়া শিমের কেজি বিক্রি হচ্ছে ৬০ টাকা; করলার কেজি ১০০ টাকা; চিচিঙ্গা কেজি ৮০ টাকা; পটল ৮০ টাকা; ঢেঁড়স ৮০ টাকা; কচুর লতি ১০০ টাকা, পেঁপে ৩০ টাকা; বরবটি ১০০ টাকা; ধুন্দুল ৮০ টাকা কেজি দরে বিক্রি হচ্ছে।

bazar2

টমেটোর কেজি বিক্রি হচ্ছে ৫০ টাকা দরে। গাজর প্রতি কেজি বিক্রি হচ্ছে ৪০ টাকা দরে। আলু কেজি বিক্রি হচ্ছে ২৫ টাকা দরে। কাঁচমরিচ কেজি ১২০ টাকা দরে বিক্রি হচ্ছে। আকারভেদে লাউ বিক্রি হচ্ছে ৫০-৬০ টাকায়। জালি বিক্রি হচ্ছে প্রতি পিস ৫০ টাকায়।


বিজ্ঞাপন


বিক্রেতারা বলছেন, রোজার প্রথমে বেগুন, শসা ও লেবুর দাম একটু বেশিই থাকে। রোজার মাঝামাঝি সময়ে এসব জিনিসের দাম কিছুটা কমে যাবে।

লেবুর দাম বেশি নিয়ে বিক্রেতারা বলেন, বৃষ্টি কম হওয়ার কারণে ফলন কম, তাই লেবুর দাম একটু বেশি। যদিও দুই-একদিন পূর্বে বৃষ্টি হয়েছে, এতে রোজার মাঝামাঝি গিয়ে দাম কিছুটা কমতে পারে।

মালিবাগ কাঁচাবাজারের বিক্রেতা মো. নুরুল হক ও মজিবর শিকদারের সাথে কথা হয় এই প্রতিবেদকের। তারা ঢাকা মেইলকে বলেন, বেশির ভাগ সবজির দাম অপরিবর্তিত রয়েছে। কিছু সবজির দাম বেড়েছে। রমজান মাসের প্রথমে লেবু, বেগুন ও শসার দাম একটু বেশি থাকে। কিছুদিন পরে দাম আবার কমে যাবে। কম বৃষ্টি হওয়ার কারণে লেবুর ফলন কম হওয়ায় দাম কিছুটা বেড়েছে। কয়েক দিন আগে বৃষ্টি হওয়ায় রোজার মাঝামাঝি গিয়ে দাম কিছুটা কমতে পারে।

এমই/জেবি

ঢাকা মেইলের খবর পেতে গুগল নিউজ চ্যানেল ফলো করুন

সর্বশেষ
জনপ্রিয়

সব খবর