শুক্রবার, ১ মার্চ, ২০২৪, ঢাকা

১০ কোটির বেশি ঋণ দিতে পারবে না ন্যাশনাল ব্যাংক

নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ২৩ জানুয়ারি ২০২৩, ০৫:৩৮ পিএম

শেয়ার করুন:

১০ কোটির বেশি ঋণ দিতে পারবে না ন্যাশনাল ব্যাংক
ফাইল ছবি

দেশে ব্যাংক খাতে বেনামি ঋণ ও ঋণ বিতরণে নানা অনিয়ম রোধে উদ্যোগ নিচ্ছে বাংলাদেশ ব্যাংক। এরই প্রেক্ষিতে বেসরকারি খাতের ন্যাশনাল ব্যাংককে ১০ কোটি টাকার বেশি ঋণ বিতরণ বন্ধে নির্দেশনা দিয়েছে কেন্দ্রীয় ব্যাংক। সেই সঙ্গে নগদ আদায় ব্যতীত পুরোনো কোনো ঋণ নবায়ন করা যাবে না বলেও জানানো হয়েছে। পাশাপাশি শতভাগ নগদ টাকা জমা ছাড়া কোনো ঋণপত্র খোলার ক্ষেত্রে নিষেধাজ্ঞা দেওয়া হয়েছে।

বাংলাদেশ ব্যাংকের পক্ষ থেকে এসব নির্দেশনা দিয়ে রোববার (২৩ জানুয়ারি) সন্ধ্যায় ব্যাংকটিকে এ বিষয়ে চিঠি পাঠানো হয়েছে। নির্দেশনা পাওয়ার বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন ন্যাশনাল ব্যাংকের শীর্ষ কর্মকর্তারা।


বিজ্ঞাপন


>> আরও পড়ুন: ৯ মাসে খেলাপি ঋণ বেড়েছে ৩৯ হাজার ৩২৬ কোটি

কেন্দ্রীয় ব্যাংক জানিয়েছে, ব্যাংকটির আমানতকারীদের স্বার্থ রক্ষায় এই নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে। অবশ্য, ন্যাশনাল ব্যাংকের ক্ষেত্রে কেন্দ্রীয় ব্যাংকের এমন নির্দেশনা নতুন নয়। এর আগেও ব্যাংকটির ঋণ বিতরণ বন্ধ করে দিয়েছিল কেন্দ্রীয় ব্যাংক। পরে বেসরকারি খাতের এই ব্যাংকটির একজন শীর্ষ গ্রাহকের চাপে বিধিনিষেধ শিথিল করা হয়।

অনিয়ম ও দুর্নীতির কারণে নানামুখী সংকটেও পড়েছে বেসরকারি খাতের ন্যাশনাল ব্যাংক। বিপুল পরিমাণ খেলাপি ঋণ প্রভিশন ঘাটতি ও লোকসানি শাখার কারণে ঝুঁকি বাড়ছে ব্যাংকটির। ব্যাংকটির ব্যবস্থাপনা পরিচালক মেহমুদ হোসেন গত বুধবার (১৮ জানুয়ারি) পর্ষদের চাপে পদত্যাগ করেন। এমন পরিস্থিতিতে কেন্দ্রীয় ব্যাংক আবার কিছু বিধিনিষেধ আরোপ করল।

>> আরও পড়ুন: ২০২২ সালে গড় মূল্যস্ফীতি ছিল ১১.৮ শতাংশ


বিজ্ঞাপন


এ বিষয়ে জানতে চাইলে কেন্দ্রীয় ব্যাংকের মুখপাত্র মেজবাউল হক বলেন, ন্যাশনাল ব্যাংকের এমডি পদত্যাগ করেছেন। এ জন্য ব্যাংকটিতে তদারকি বাড়ানো হয়েছে। বড় ঋণ বন্ধ রাখতে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। এছাড়া আরও কিছু নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে।

এদিকে, বাংলাদেশ ব্যাংকের চিঠিতে বলা হয়েছে, সর্বোচ্চ ১০ কোটি টাকা পর্যন্ত কৃষি, চলতি মূলধন, এসএমই ও ভোক্তা ঋণ এবং বাংলাদেশ ব্যাংকের পুনঃঅর্থায়ন সুবিধার আওতায় ঋণ বিতরণ ছাড়া অন্য কোনো ঋণ দেওয়া যাবে না। এছাড়া ঋণপত্র খুলতে হলে গ্রাহকের কাছ থেকে পুরো টাকা আগে জমা নিতে হবে।

চিঠিতে আরও বলা হয়েছে, আগে অনুমোদন হওয়া ঋণের অর্থের ১০ কোটি টাকার বেশি বিতরণে কেন্দ্রীয় ব্যাংকের অনুমোদন নিতে হবে। আগের ঋণের বকেয়া অর্থ নগদ আদায় ছাড়া ওই ঋণ নবায়ন করা যাবে না। পাশাপাশি অন্য ব্যাংকের কোনো ঋণ অধিগ্রহণ করা যাবে না বলেও চিঠিতে উল্লেখ করা হয়েছে।

>> আরও পড়ুন: এক বছরে প্রায় ১২৩ কোটি টাকা মুনাফা করেছে পিজিসিবি

সর্বশেষ এই পদক্ষেপের মাধ্যমে বেসরকারি খাতের এই ব্যাংককে নিয়মে ফেরাতে চেষ্টা করছে কেন্দ্রীয় ব্যাংক। এর আগে শেষ চেষ্টা হিসেবে বেসিক ব্যাংক ও সাবেক ফারমার্স (এখন পদ্মা) ব্যাংকের ক্ষেত্রে একই উদ্যোগ নিয়েছিল বাংলাদেশ ব্যাংক। তবে শেষ পর্যন্ত ব্যাংক দুটি বিপর্যয়ের হাত থেকে পুরোপুরি রক্ষা পায়নি। এখন ন্যাশনাল ব্যাংকের বিষয়ে একই পদক্ষেপ নেওয়া হয়েছে।

উল্লেখ্য, বর্তমানে ন্যাশনাল ব্যাংকের খেলাপি ঋণের হার প্রায় ২৭ দশমিক ৪৬ শতাংশ।

এইচআর/আইএইচ

ঢাকা মেইলের খবর পেতে গুগল নিউজ চ্যানেল ফলো করুন

সর্বশেষ
জনপ্রিয়

সব খবর