এলসি নিয়ে সমস্যা সমাধানে এক মাস সময় চাইলেন পরিকল্পনামন্ত্রী

জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ২৪ নভেম্বর ২০২২, ০৩:৫৮ পিএম
এলসি নিয়ে সমস্যা সমাধানে এক মাস সময় চাইলেন পরিকল্পনামন্ত্রী

বাণিজ্যিক আমদানির ঋণপত্র বা এলসি খুলতে ব্যবসায়ীদের সমস্যার মুখোমুখি হওয়ার কথা স্বীকার করে পরিকল্পনামন্ত্রী এম এ মান্নান আগামী ডিসেম্বরের মধ্যে সমস্যা সমাধানের আশ্বাস দিয়েছেন।

ব্যবসায়ীদের একমাস অপেক্ষা করার অনুরোধ জানিয়ে মন্ত্রী বলেছেন, ‘আপনাদের এলসি খুলতে সমস্যা হচ্ছে। আর এক মাস একটু অপেক্ষা করেন। এখনই সংকট কিছুটা নরমাল হয়ে এসেছে। ডিসেম্বরের মধ্যেই সমস্যার সমাধান হবে, ইনশাআল্লাহ্।

বৃহস্পতিবার (২৪ নভেম্বর) তিন দিনব্যাপী বাংলাদেশ বিল্ডকন, উড এবং ইলেট্রিক্যাল ইন্টারন্যাশনাল প্রদর্শনীর উদ্বোধন অনুষ্ঠানে অংশ নিয়ে এম এ মান্নান এসব কথা বলেন। রাজধানীর ইন্টারন্যাশনাল কনভেনশন সিটি বসুন্ধরায় এই প্রদর্শনী শুরু হয়েছে।

ব্যবসায়ীদের উদ্দেশে পরিকল্পনামন্ত্রী বলেন, গভর্নরের (বাংলাদেশ ব্যাংকের গর্ভনর) সঙ্গে দুই দিন আগেও কথা হয়েছে। তারপরও আমি আপনাদের সমস্যার কথাগুলো গভর্নরের কাছে পৌঁছে দেব।

এলসি খুলতে সমস্যার সম্মুখীন হচ্ছেন বলে ব্যবসায়ীরা দাবি করলেও বাংলাদেশ ব্যাংকের দাবি এমন কোনো সমস্যা হচ্ছে না। গত ১৪ নভেম্বর বাংলাদেশ ব্যাংকের নির্বাহী পরিচালক ও মুখপাত্র জি এম আবুল কালাম আজাদ জানিয়েছিলেন, বাণিজ্যিক আমদানির ঋণপত্র বা এলসি খোলা বন্ধ থাকার বিষয়টি সঠিক নয়। ব্যাংকগুলো প্রতিদিনই বাণিজ্যিক ঋণপত্র বা এলসি খুলছে। তবে কিছু সামাজিক মাধ্যমে মিথ্যা ও বিভ্রান্তিমূলক তথ্য ছড়ানো হচ্ছে। ডলারের কিছু সংকট থাকলেও এলসি খোলা বন্ধের কোনো নির্দেশনা দেয়নি বাংলাদেশ ব্যাংক। সক্ষমতা অনুযায়ী ব্যাংকগুলো পণ্যের বিপরীতে এলসি খুলছে। বাজারের চাহিদা মেটানোর জন্য বাংলাদেশ ব্যাংক নিয়মিত ডলার সাপোর্ট দিয়ে যাচ্ছে। আশা করছি ভবিষ্যতেও দিয়ে যাবে।

বাংলাদেশ ব্যাংক এমনটা দাবি করলেও পরিকল্পনামন্ত্রী ব্যবসায়ীদের সমস্যার কথা অনেকটা স্বীকার করে নিয়ে এর সমাধানের আশ্বাস দেন।

বর্তমান সরকার পুরোপুরি ব্যবসাবান্ধব এমন দাবি করে এম এ মান্নান বলেন, ‘অর্থনীতির ৮০ শতাংশ আপনাদের ব্যবসায়ীদের হাতে। সেজন্য আপনাদের জন্য সব দরজা খোলা। প্রধানমন্ত্রী আপনাদের জন্য অত্যন্ত আন্তরিক।’

দেশের শান্তি বিনষ্ট করার চেষ্টা হচ্ছে এমন অভিযোগ করে মন্ত্রী বলেন, ‘সাধারণ মানুষকে আমি বলব, যেসব দেশ উন্নয়ন করেছে তাদের সামাজিক শান্তি ঠিক ছিল। আমরাও ব্যবসায়ীদের এতোদিন নিরবচ্ছিন্ন কাজ করতে দিয়েছি। কিন্তু এখন রাজনীতির নামে অরাজকতা করে সে শান্তি নষ্ট করার অপচেষ্টা চলছে। সবাই মিলে সেই অপচেষ্টা রুখতে হবে।

বিইউ/এমআর