শুক্রবার, ২১ জুন, ২০২৪, ঢাকা

নাটোরে কৃষকের ৩৬ বিঘা জমির গম পুড়ে ছাই

জেলা প্রতিনিধি
প্রকাশিত: ২৫ মার্চ ২০২৩, ০১:৪৬ পিএম

শেয়ার করুন:

নাটোরে কৃষকের ৩৬ বিঘা জমির গম পুড়ে ছাই
ছবি: ঢাকা মেইল

নাটোরের বড়াইগ্রাম উপজেলার আটঘরিয়া গ্রামের ফসলি মাঠে আগুন লেগে প্রায় ৩৬ বিঘা জমির পাকা গম পুড়ে ছাই হয়ে গেছে। এতে প্রায় ২৪ জন কৃষক ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছেন।

শুক্রবার (২৫ মার্চ) দুপুরে বড়াইগ্রাম উপজেলার আটঘরিয়া এলাকায় এই দুর্ঘটনা ঘটনা ঘটে।


বিজ্ঞাপন


ক্ষতিগ্রস্ত কৃষকরা জানায়, শুক্রবার দুপুর ২টার দিকে জমিতে হঠাৎ আগুন লাগার ঘটনা ঘটে। এসময় দ্রুত পাশের জমিগুলোতে আগুন ছড়িয়ে পড়ে। এতে জমিতে থাকা গম পুড়ে ছাই হয়ে যায়। খবর পেয়ে এলাকাবাসী ও বনপাড়া ফায়ার সার্ভিসের দুইটি ইউনিট ঘটনাস্থলে গিয়ে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনে।

স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান চেয়ারম্যান আলী আকবর জানান, রওশন হোসেন নামের এক কৃষক শুক্রবার সকালে তার জমির পাকা গম কেটে ঘরে তোলেন। দুপুর ১২টার দিকে গমের খড়ের গোড়ার অংশগুলো ধ্বংস করার জন্য তিনি তার ওই জমিতে আগুন দিয়ে বাড়ি চলে আসেন। আগুন দ্রুত পাশের কৃষকের গমের জমিতে ছড়িয়ে পড়ে। ফলে নিমিষেই আগুনে সব পাকা গম পুড়ে যায়। পরে খবর পেয়ে বনপাড়া ফায়ার সার্ভিসের দুইটি ইউনিট ঘটনাস্থলে গিয়ে আগুন নিয়ন্ত্রনে আনে।

ক্ষতিগ্রস্ত কৃষক আশরাফ, সাইফুল, শামসুল, গিয়াস ও শাহজাহান বলেন, পুড়ে যাওয়া ওই সব জমির এক বিঘায় কমপক্ষে ১৫ মণ গম উৎপাদন হয়। সে হিসেবে ৩৬ বিঘা জমিতে আনুমানিক ৫৪০ মণ গম পুড়ে ছাই হয়ে গেছে। এ আনুমানিক মূল্য প্রায় ১১ লাখ টাকা। আমরা পরিবার নিয়ে কি করে খাবো? গম বিক্রি করে কিছু ঋণ পরিশোধ ও ঈদে পরিবারের কাপড় কিনতে চেয়েছিলাম। সে স্বপ্ন এখন দুঃস্বপ্নে পরিণত হয়েছে।

ক্ষতিগ্রস্ত কৃষক চাঁদ মিয়া, সাত্তার, মজিদ, কাদের বলেন, সামনে ঈদ। গম বিক্রি করে ছেলে-মেয়েদের জন্য ঈদের জামা-কাপড় কিনে দেবো বলে আশায় ছিলাম। কিন্তু সে স্বপ্ন এখন শেষ। আমরা কৃষকরা অনেক সমিতি থেকে ঋণ নিয়ে গম চাষ করেছিলাম। সেই স্বপ্ন পুড়ে ছাই হয়ে গেছে। এখন সে ঋণের টাকাও পরিশোধ করবো, না পরিবারের মুখে খাবার জোগাবো। এ চিন্তায় দিশেহারা হয়ে পড়েছি ক্ষতিগ্রস্ত কৃষকরা।


বিজ্ঞাপন


উপজেলা কৃষি অফিসার শারমিন সুলতানা বলেন, রওশন হোসেন নামে এক কৃষকের অসাবধনতার কারণে এই অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা ঘটেছে বলে ক্ষতিগ্রস্ত কৃষকরা জানিয়েছেন। ক্ষতিগ্রস্ত কৃষকদের তালিকা করা হচ্ছে। প্রাথমিক তদন্তে ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছেন ১৭ কৃষক। কারও ১০ কাঠা, কারো ৭ কাঠা এভাবে ১২ বিঘা জমির পাকা গম পুড়ে গেছে।

উপজেলা নির্বাহী অফিসার (ইউএনও) মোছা. মারিয়াম খাতুন বলেন, এটি অত্যন্ত দুঃখজনক ঘটনা। ক্ষতিগ্রস্ত কৃষকদের তালিকা করা হচ্ছে। কৃষকদের আর্থিকভাবে সহায়তা করা হবে।

টিবি

ঢাকা মেইলের খবর পেতে গুগল নিউজ চ্যানেল ফলো করুন

সর্বশেষ
জনপ্রিয়

সব খবর