সোমবার, ৪ মার্চ, ২০২৪, ঢাকা

বাইক চালাতে বারণ করায় অভিমানে বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রের আত্মহত্যা

জেলা প্রতিনিধি
প্রকাশিত: ২৪ মার্চ ২০২৩, ১০:৫৬ পিএম

শেয়ার করুন:

বাইক চালাতে বারণ করায় অভিমানে বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রের আত্মহত্যা

ঢাকার সাভারে বাইক (মোটরসাইকেল) চালাতে নিষেধ করায় পরিবারের উপর অভিমান করে শাহীন ইসলাম (২২) নামে বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়ুয়া এক শিক্ষার্থী ফাঁসিতে ঝুলে আত্মহত্যা করেছে। শুক্রবার (২৪ মার্চ) সাভার পৌরসভার গেন্ডা এলাকার নিহতের নিজস্ব বাড়ির ৩য় তলায় এ ঘটনা ঘটে।

শুক্রবার (২৪ মার্চ) রাত ৯টার দিকে ঢাকা মেইলকে বিষয়টি নিশ্চিত করেন সাভার মডেল থানার পুলিশ উপ-পরিদর্শক মো. হারুন মিয়া।


বিজ্ঞাপন


নিহত শাহীন মানিকগঞ্জ জেলার সিংগাইর উপজেলার জার্মিতা ইউনিয়নের চাপরাইল এলাকার কুয়েত প্রবাসী আবুল কাশেমের একমাত্র ছেলে এবং আশুলিয়ার বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয় সিটি ইউনিভার্সিটির স্নাতক দ্বিতীয় বর্ষের শিক্ষার্থী ছিলেন।

নিহত শাহীনের কয়েকজন বন্ধু নাম না প্রকাশ করে জানায়, ছোটকাল থেকেই মোটরসাইকেলের প্রতি তার ব্যাপক আগ্রহ ছিল এবং বাইক চালাতে খুব পছন্দ করতো। কিন্তু গত বছরের রোজায় নিহত শাহীন ও তাদের আরেক বন্ধু মেহেদী বাইক এক্সিডেন্ট করে। এতে বাইকের চালক মেহেদী মারা চায়। এরপর থেকেই শাহীনের পরিবার তাকে বাইক চালাতে নিষেধ করে। এ নিয়েই আজ সকালে পরিবারের সদস্যদের সঙ্গে শাহীনের মনমালিন্য হলে অভিমানে নিজের ঘরে ঢুকে দরজা বন্ধ করে দেয়। পরে অনেকক্ষণ যাবত দরজা না খোলায় ভেতরে ঢুকে শাহীনকে ঝুলন্ত অবস্থায় দেখতে পেয়ে পরিবারের সদস্যরা তাকে সাভারের এনাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

এ ব্যাপার সাভার মডেল থানার পুলিশ উপ-পরিদর্শক (এসআই) মো. হারুন মিয়া ঢাকা মেইলকে বলেন সন্ধ্যার দিকে খবর পেয়ে হাসপাতাল থেকে মরদেহ উদ্ধার করে থানায় নিয়ে এসেছি। প্রাথমিক ভাবে জানতে পেরেছি মোটরসাইকেল চালাতে নিষেধ করায় পরিবারের সঙ্গে অভিমান করে নিজের ঘরে ঢুকে দরজা বন্ধ করে গলায় দড়ি দিয়ে আত্মহত্যা করেছে। এ ব্যাপারে প্রয়োজনীয় আইনানুগ ব্যবস্থা প্রক্রিয়াধীন রয়েছে। 

ঢাকা মেইলের খবর পেতে গুগল নিউজ চ্যানেল ফলো করুন

সর্বশেষ
জনপ্রিয়

সব খবর