স্ত্রীকে হত্যার পর ১৫ বছর আত্মগোপনে থেকেও শেষ রক্ষা হলো না

জেলা প্রতিনিধি
নারায়ণগঞ্জ
প্রকাশিত: ২৫ জানুয়ারি ২০২৩, ১১:১৫ এএম
স্ত্রীকে হত্যার পর ১৫ বছর আত্মগোপনে থেকেও শেষ রক্ষা হলো না

স্ত্রীকে হত্যার পর ১৫ বছর আত্মগোপনে থেকেও শেষ রক্ষা হলো না স্বামী রেজাউল করিম জাহিদের (৩৪)। অবশেষে যাবজ্জীবন সাজাপ্রাপ্ত এই আসামিকে গ্রেফতার করতে সক্ষম হয়েছে র‌্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়ন (র‍্যাব)-১৪।

মঙ্গলবার (২৪ জানুয়ারি) বিকেলে নারায়ণগঞ্জ জেলার রুপগঞ্জের বালুর মাঠ এলাকা থেকে তাকে গ্রেফতার করে র‍্যাব-১৪র জামালপুর ক্যাম্প।

এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে র‍্যাব বিষয়টি নিশ্চিত করেছে।

যাবজ্জীবন সাজাপ্রাপ্ত আসামি রেজাউল করিম জাহিদ (৩৪) তার স্ত্রীকে হত্যার পর দীর্ঘ ১৫ বছর ধরে আত্মগোপনে ছিলেন।

বিজ্ঞপ্তিতে র‍্যাব জানায়, জামালপুর সদরের মো. হালিমের ছেলে রেজাউল করিম জাহিদ স্ত্রীসহ ঢাকার কেরানীগঞ্জ থানা এলাকায় বসবাস করতেন। সেসময় পারিবারিক কলহের জেরে স্ত্রীকে বিভিন্নভাবে নির্যাতন করতেন জাহিদ। নির্যাতনের এক পর্যায়ে তার স্ত্রীর মাথায় লাথি মারলে তিনি দেয়ালে আঘাতপ্রাপ্ত হন ও পরে ঘটনাস্থলেই মারা যান। এ ঘটনায় কেরানীগঞ্জ থানার এসআই মাহিদুল ইসলাম বাদী হয়ে মামলা দায়ের করেন।

মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা তদন্ত শেষে আসামির বিরুদ্ধে আদালতে অভিযোগপত্র দাখিল করেন। পরে অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ, ৮ম আদালতের বিচারক আসামি জাহিদকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড ও ১০ হাজার টাকা অর্থদণ্ডে দণ্ডিত করেন। মামলার ঘটনার পর থেকেই আসামি জাহিদ আত্মগোপনে চলে যায়।

র‍্যাব আরও জানায়, দীর্ঘ ১৫ বছর আত্মগোপনে থাকা অবস্থায় রেজাউল করিম জাহিদ দেশের বিভিন্ন স্থানে বিভিন্ন পরিচয়ে শ্রমিক এবং দিনমজুর পেশায় নিয়োজিত ছিল। পরবর্তীতে তার ব্যাপারে বিভিন্ন তথ্য উপাত্ত সংগ্রহ ও বিশ্লেষণ করে আসামির অবস্থান নিশ্চিত করে অভিযান শুরু করে র‍্যাব। পরবর্তীতে মঙ্গলবার বিকেল ৪ টার দিকে নারায়ণগঞ্জ জেলার রুপগঞ্জের বালুর মাঠ এলাকা থেকে আসামিকে আটক করতে সক্ষম হয় র‍্যাব।

র‌্যাব-১৪, সিপিসি-১ জামালপুরের কোম্পানি কমান্ডার স্কোয়াড্রন লিডার আশিক উজ্জামান জানান, প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে আসামি ওই ঘটনার বিবৃতি দিয়েছে এবং সত্যতা স্বীকার করেছে। তাকে জামালপুর সদর থানায় হস্তান্তর করা হয়েছে।

টিবি