সৎ মায়ের ছোড়া গরম পানিতে প্রাণ গেল প্রতিবন্ধী কিশোরের

জেলা প্রতিনিধি
বরিশাল
প্রকাশিত: ২৫ জানুয়ারি ২০২৩, ০৯:২২ এএম
সৎ মায়ের ছোড়া গরম পানিতে প্রাণ গেল প্রতিবন্ধী কিশোরের

বরিশালের হিজলা উপজেলায় সৎমায়ের ছোড়া গরম পানিতে ঝলসে গিয়ে এক প্রতিবন্ধী কিশোরের মৃত্যুর অভিযোগ পাওয়া গেছে।

সোমবার (২৩ জানুয়ারি) শেরে বাংলা মেডিকেল কলেজ (শেবাচিম) হাসপাতালে নেওয়ার পথে তার মৃত্যু হয়।

হিজলা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. ইউনুস মিয়া ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন।

নিহতের নাম ছাইদুল ইসলাম (১৪)। সে উপজেলার মেমানিয়া ইউনিয়নের ৬ নম্বর ওয়ার্ডের বাউশিয়া গ্রামের নুরু মীরার ছেলে।

ছাইদুলের ভাই ছিদ্দিক বলেন, বৃহস্পতিবার সৎ মা ক্ষিপ্ত হয়ে রান্নাঘর থেকে গরম পানি ছুঁড়ে মারেন। এতে তার শরীর ঝলসে যায়, কিন্তু এতদিন সৎমা তাকে চিকিৎসার জন্য বাইরে যেতে দেননি। পাঁচ দিন পর আমি নদী থেকে মাছ ধরে বাড়িতে এসে ছোট ভাইয়ের এই অবস্থা দেখে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিই। পরে সেখানকার চিকিৎসকেরা উন্নত চিকিৎসার জন্য শেবাচিম হাসপাতালে পাঠায়। সেখানে নেওয়ার পথে তার মৃত্যু হয়।

প্রতিবেশি ইউনুস সরদার বলেন, জন্ম থেকেই সাইদুল শারীরিক ও মানসিক প্রতিবন্ধী। এক বছর আগে তার মা মারা গেছে। ছয় মাস আগে তার বাবা আবারও বিয়ে করেছে। তার বাবা ও ভাই মাছ শিকারে নদীতে থাকে।

ইউনুস সরদার আরও বলেন, সোমবার বিকেলে সাইদুল বেশি অসুস্থ হয়ে পড়লে অন্যান্য প্রতিবেশিরা দেখতে যায়। সেখানে গিয়ে তারা শুনেছে, সাইদুল খেতে চেয়েছিল। তখন সৎ মা ফাহিমা গরম পানি ছুঁড়ে মেরেছে। কয়েকশ মানুষ বাড়িতে উপস্থিত হলে সে পালিয়ে যায়।

ওসি মো. ইউনুস মিয়া জানান, জন্ম থেকে বিছানায় পড়ে ছিল ছেলেটি। গরম পানিতে চামড়া উঠে গেছে। আপাতত অপমৃত্যুর মামলা করা হয়েছে। নিহতের মরদেহের ময়নাতদন্ত করা হবে। প্রতিবেদন পেলে পরবর্তী ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

টিবি