২ দিন ধরে সর্বনিম্ন তাপমাত্রা পঞ্চগড়ে

জেলা প্রতিনিধি
পঞ্চগড়
প্রকাশিত: ২৩ জানুয়ারি ২০২৩, ১১:৫৯ এএম
২ দিন ধরে সর্বনিম্ন তাপমাত্রা পঞ্চগড়ে
ছবি: ঢাকা মেইল

হিমালয় ও কাঞ্চনজঙ্ঘা পর্বতের কাছাকাছি হওয়ায় পঞ্চগড়ে তীব্র শীত ও হিমেল হাওয়ায় চলছে শৈত্যপ্রবাহ। জেলায় গত ২ দিন ধরে সর্বনিম্ন তাপমাত্রা বিরাজ করছে। প্রচণ্ড শীত আর শৈত্যপ্রবাহে এই জেলার মানুষ নিদারূণ কষ্টে জীবন পার করছেন। সবচেয়ে বেশি ভোগান্তিতে পড়েছেন নিম্ন আয়ের মানুষ।

সোমবার (২৩ জানুয়ারি) জেলায় তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয়েছে ৮.২ ডিগ্রি সেলসিয়াস। এটি দেশের মধ্যে সর্বনিম্ন তাপমাত্রা।

পঞ্চগড়ের তেঁতুলিয়া আবহাওয়া অফিসের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা রাশেল শাহ্ ঢাকা মেইলকে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

তিনি বলেন, সোমবার সকাল ৯টায় তেঁতুলিয়ায় ৮.২ ডিগ্রি সেলসিয়াস তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয়েছে। কুয়াশার সঙ্গে হিমেল হাওয়ায় প্রবল শীত অব্যহত রয়েছে। এছাড়াও গত কয়েকদিন ধরে সকালে ও সন্ধ্যার পর ঘন কুয়াশা নামছে। এমন আবহাওয়া আরও কয়েকদিন থাকার সম্ভাবনা আছে।

আবহাওয়া অফিস সূত্রে জানা গেছে, ২ দিন ধরে পঞ্চগড়ের তেঁতুলিয়ায় সর্বনিম্ন তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয়েছে। রোববার (২২ জানুয়ারি) সকাল ৯টায় ৮.০ ডিগ্রি সেলসিয়াস ও সোমবার (২৩ জানুয়ারি) ৮.২ ডিগ্রি সেলসিয়াস তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয়েছে।

বিগত কয়েকদিন থেকে ঘন কুয়াশায় আবৃত হয়ে পড়েছে চারদিক। শীতার্ত মানুষ তীব্র কষ্টে দিন পার করছেন। বর্তমানে রোদেরও দেখা মিললেও নেই কোনো উত্তাপ। শ্রমিকরা শীতের তীব্রতায় কাজও করতে পারছে না। ফলে আয় কমেছে তাদের। এইসব শীতার্ত মানুষদের শীতের কাপড় কেনার সামর্থ্য নেই। শীতের কাপড়ের অভাবে এসব মানুষের জীবন বিপর্যস্ত হয়ে পড়েছে।

এদিকে, নিম্ন আয়ের অনেক মানুষের কাছে এখনও পর্যাপ্ত সরকারি বা বেসরকারিভাবে শীতবস্ত্র পৌঁছায়নি। কনকনে শীতের মধ্যে কাজ করে জীবনযাপন করছে খেটে খাওয়া এসব মানুষ। এছাড়াও শীত থেকে একটুখানি রক্ষা পাওয়ার আসায় অনেকেই বাড়ি কিংবা ফুটপাতে খড়কুটো জ্বালিয়ে সময় পার করছেন।

টিবি