রোববার, ২১ এপ্রিল, ২০২৪, ঢাকা

আ.লীগের প্যাডে ‘এসএসসি ফ্রেন্ডস ’৮৭’ ব্যাচের কমিটি!

জেলা প্রতিনিধি
প্রকাশিত: ০৭ ডিসেম্বর ২০২২, ১১:৫৪ এএম

শেয়ার করুন:

আ.লীগের প্যাডে ‘এসএসসি ফ্রেন্ডস ’৮৭’ ব্যাচের কমিটি!
ছবি : ঢাকা মেইল

সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে যশোর জেলা আওয়ামী লীগের দলীয় প্যাডে ‘এসএসসি ফ্রেন্ডস ৮৭’ ব্যাচের আংশিক কমিটি অনুমোদনের চিঠি ছড়িয়েছে। দলীয় প্যাডে রাজনৈতিক বহির্ভূত এমন কমিটির অনুমোদন দেওয়ায় ক্ষুব্ধ আওয়ামী লীগ ও তার সহযোগী সংগঠনের নেতারা। চলছে তীব্র সমালোচনা ও নিন্দার ঝড়।

দলীয় প্যাডে উল্লেখ করা হয়েছে, ‘আগামী তিন বছরের জন্য এই কমিটি অনুমোদন দেওয়া হলো। আপাতত সভাপতি এবং সাধারণ সম্পাদক সদস্য নির্বাচিত করা হলো।’


বিজ্ঞাপন


গত ১৬ অক্টোবর যশোর জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি শহিদুল ইসলাম মিলন ও সাধারণ সম্পাদক শাহীন চাকলাদার এমপির স্বাক্ষরিত আওয়ামী লীগের দলীয় প্যাডে ‘এসএসসি ফ্রেন্ডস ৮৭’ ব্যাচের এ কমিটি অনুমোদন দেওয়া হয়। কমিটিতে জেলা আওয়ামী লীগের বন ও পরিবেশবিষয়ক সম্পাদক সাইফউদ্দিন আহাম্মেদকে সভাপতি ও রড-সিমেন্ট ব্যবসায়ী আরিফুল আলমকে সাধারণ সম্পাদক করা হয়। 

প্রায় দেড় মাস আগে এই কমিটি অনুমোদন দেওয়া হলেও এত দিন তা প্রকাশ্যে আসেনি। গত কয়েক দিনে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে কমিটি অনুমোদনের চিঠিটি ছড়িয়ে পড়েছে। সেখানে সমালোচনা ও নিন্দার ঝড় বইছে। অনেকেই কমিটি অনুমোদন দেওয়ার চিঠিটি ফেসবুকে পোস্ট করে জেলা আওয়ামী লীগের শীর্ষ নেতাদের দায়িত্বজ্ঞান নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন। 

জেলা আওয়ামী লীগের কতিপয় নেতার বিতর্কিত কর্মকাণ্ডের মধ্য দিয়ে আওয়ামী লীগের ইতিহাস-ঐতিহ্য ম্লানের অপচেষ্টা ও ষড়যন্ত্র চলছে দাবি স্থানীয় আওয়ামী লীগ নেতাদের।

এ বিষয়ে জেলা আওয়ামী লীগের সিনিয়র সহসভাপতি আব্দুল মজিদ ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেন, গঠনতন্ত্র অনুযায়ী জেলা আওয়ামী লীগ এই কমিটি অনুমোদন দিতে পারে না। তারা অন্যায় অনৈতিক কাজ করেছে। কমিটির কাউকে জানানোও হয়নি। জানানো হলেও গঠনতন্ত্রে এটা করার সুযোগ নেই। তাদের এই কাজের অনেকেই সমালোচনা করছে। যখন জেলা আওয়ামী লীগে কার্যনির্বাহী কমিটির সভা হবে, সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকের কাছে নিয়মবহির্ভূত এই কাজের জবাব চাইব। 


বিজ্ঞাপন


এসএসসি ফ্রেন্ডস ’৮৭-এর সভাপতি ও জেলা আওয়ামী লীগের বন ও পরিবেশবিষয়ক সম্পাদক সাইফউদ্দিন আহাম্মেদ বলেন, এসব সংগঠন বিএনপিতে রয়েছে; কিন্তু আমাদের মুক্তিযুদ্ধের চেতনার দল আওয়ামী লীগে নাই। আমাদের এই কমিটিতে যারা বঙ্গবন্ধুর চেতনায় বিশ্বাসী, তাদের এক ছাতায় আনতে এই উদ্যোগ। আমাদের এই আংশিক কমিটি জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক অনুমতি দিয়েছেন। প্রতিটি কাজের পক্ষ-বিপক্ষ থাকবে। এটা নিয়ে সমালোচনা করার কিছু নাই।

এ বিষয়ে জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি শহিদুল ইসলাম মিলন বলেন, প্রথমে প্যাডেই আমরা কমিটি অনুমোদন দিয়েছিলাম। না বুঝেই কাজটি করেছি।

পরে কমিটি বাতিল করা হয়েছে বলে দাবি করেন জেলা আওয়ামী লীগের এই শীর্ষ নেতা।

প্রতিনিধি/এইচই

ঢাকা মেইলের খবর পেতে গুগল নিউজ চ্যানেল ফলো করুন

সর্বশেষ
জনপ্রিয়

সব খবর