লক্ষ্মীপুরে ভাইয়ের হাতে ভাই খুন

জেলা প্রতিনিধি
লক্ষ্মীপুর
প্রকাশিত: ০১ ডিসেম্বর ২০২২, ১২:৪১ পিএম
লক্ষ্মীপুরে ভাইয়ের হাতে ভাই খুন
ছবি: ঢাকা মেইল

লক্ষ্মীপুরে স্ত্রী জেসমিন আক্তার ও বড় মেয়ে সামিয়া হাসনাতকে মারধর করায় ক্ষিপ্ত হয়ে আপন ভাই তোফায়েল আহম্মদকে হত্যা করার অভিযোগ উঠেছে ছোট ভাই হোসেন আহম্মেদের বিরুদ্ধে। এ ঘটনায় পুলিশ ঘাতক হোসেন আহম্মেদকে আটক করছে।

বুধবার (৩০ নভেম্বর) রাত সাড়ে ৮টার দিকে লক্ষ্মীপুর পৌরসভার (১২ নম্বর ওয়ার্ড) লাহারকান্দি এলাকার দমদমা দীঘির পাড়ে এ ঘটনা ঘটে।

তোফায়েল একই এলাকার আজিজ উল্যা দফাদার বাড়ির মমতাজুর রহমানের ছেলে। তার স্ত্রী, দুই মেয়ে ও এক ছেলে থাকলেও তারা ঢাকায় থাকেন। তিনি একাই বাড়িতে থাকতেন।

হোসেন আহম্মেদ তার আপন ছোট ভাই। তিনি ওয়ার্ড স্বেচ্ছাসেবক লীগের সাধারণ সম্পাদক ও জেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি মো. বেলাল হোসেন বেলালের ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে চাকরি করেন।

স্থানীয়দের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, এশার নামাজ পড়ে তোফায়েল স্থানীয় এক দোকানে চা খেতে যান। চা খেয়ে তিনি বাড়ি ফিরছিলেন। এসময় দমদমা দিঘিরপাড়ে হোসেন তার ওপর হামলা করে। একপর্যায়ে তার দু-পায়ের হাঁটুর নিচের এলোপাতাড়ি আঘাত করতে থাকেন। একপর্যায়ে সেই বাঁচার জন্য দৌড়ে পালাতে গেলে পাকা রাস্তায় লুটে পড়ে। এতে ঘটনাস্থলে তার মৃত্যু হয়।

স্বজনদের সঙ্গে কথা বলে জানা যায়, জমি সংক্রান্ত বিরোধের জের ধরে প্রায়ই তোফায়েল ও হোসেনের সঙ্গে ঝগড়াঝাটি হতো। বুধবার সকালে তোফায়েলের সঙ্গে হোসেনের স্ত্রী জেসমিন বেগমের কথা কাটাকাটি হয়। সন্ধ্যায় হোসেন তার কর্মস্থল থেকে বাড়িতে এলে স্ত্রী জেসমিন তার কাছে বিচার দেয়। এসব শুনে ক্ষিপ্ত হয়ে হোসেন ঘর থেকে দা-নিয়ে তোফায়েলের ওপর হামলা করে। এতে হামলার শিকার হয়ে তোফায়েল মৃত্যুবরণ করেন।

হোসেনের স্ত্রী জেসমিন আক্তার জানান, দীর্ঘদিন ধরে আমাদের জায়গাজমি নিয়ে বিরোধ চলে আসছে। এ বিরোধকে কেন্দ্র করে সবসময় আমার ভাশুর তোফায়েল খারাপ ভাষায় গালমন্দ করতো। (আজ) বুধবার সকালে তিনি আমাকে ও আমার মেয়েকে মারধর করে। সন্ধ্যার পর আমার স্বামী হোসেন বাড়ি ফিরলে বিষয়টি আমি তার সঙ্গে শেয়ার করি। হঠাৎ তিনি রেগে গিয়ে ঘর থেকে দা-নিয়ে আমার ভাশুরকে মারধর করে। পরে তিনি মারা যান।

লক্ষ্মীপুর পৌরসভার ১২ নম্বর ওয়ার্ড কাউন্সিলর রিয়াজ পাটোয়ারী রাজু ঢাকা মেইলকে জানান, খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে এসে জানতে পারি পারিবারিক কলহের জের ধরে হোসেন তার ভাই তোফায়েলকে মারধর করে। একপর্যায়ে তিনি মারা যান।

লক্ষ্মীপুর জেলা পুলিশ সুপার মাহফুজ্জামান আশরাফ বলেন, খবর পেয়ে আমরা ঘটনাস্থল পরিদর্শন করছি। স্থানীয় ও স্বজনদের সঙ্গে কথা বলেছি। লাশ উদ্ধার করে হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়েছে। অভিযুক্ত হোসেনকে আটক করে থানায় পাঠানো হয়েছে।

টিবি