মিষ্টান্ন দোকান থেকে ৪৫ হাজার টাকা নিয়ে লাপাত্তা ‘ম্যাজিস্ট্রেট’

জেলা প্রতিনিধি
গাইবান্ধা 
প্রকাশিত: ০৬ অক্টোবর ২০২২, ০৩:৫১ এএম
মিষ্টান্ন দোকান থেকে ৪৫ হাজার টাকা নিয়ে লাপাত্তা ‘ম্যাজিস্ট্রেট’

গাইবান্ধার পলাশবাড়ী উপজেলা শহরে অজ্ঞাতনামা এক ব্যক্তি নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট পরিচয় দিয়ে তিন মিষ্টান্ন দোকানে ৪৫ হাজার টাকা জরিমানা গ্রহণ করে লাপাত্তা দিয়েছে। এ ঘটনায় চরম ক্ষুব্ধতা বিরাজ করছে ব্যবসায়ী মহলে।

বুধবার (৫ অক্টোবর) বিকেলে উপজেলার কালিবাড়ী বাজারে এই কাণ্ড ঘটে। প্রতারণার শিকার ব্যবসায়ীরা হলেন, সুমন মিষ্টি ভাণ্ডারের মালিক সুমন মিয়া, সুমনা মিষ্টান্ন ভাণ্ডারের মালিক ইউনুছ আলী, মামুন মিষ্টান্ন ভাণ্ডারের মালিক মামুন মিয়া। 

এই ভুক্তভোগীরা জানায়, বুধবার বিকেল ৫ টার দিকে পলাশবাড়ী হাটবাজার ব্যবসায়ীর সভাপতি আযম আলী মুঠোফোনে এক ব্যক্তির সাথে মিষ্টি ব্যবসায়ী সুমন মিয়ার কথা বলে দেন। মোবাইলে অপর পাশ থেকে কথা বলা ব্যক্তি নিজেকে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট হিসেবে পরিচয় দিয়ে বলেন, আপনারা কয়জন মিষ্টি দোকানী রয়েছেন। আমরা আপনাদের দোকানে ও বসতবাড়িতে অভিযান পরিচালনা করবো। এরপর জরিমানা করা হবে একথা শুনে মিষ্টি দোকানী মোবাইল কেটে দেন। এরপর আবার সেই নম্বর থেকে মিষ্টি দোকানীকে কল দিয়ে ধমক দিয়ে বলেন, তারাতারি জানান আমরা আপনাদের দোকানে ও বাড়িতে যাবো কিনা। তখন হাট বাজার সমিতির সভাপতি আযম আলী ও তিন মিষ্টি ব্যবসায়ী অনুনয় বিনয় করে প্রতিজনে ১৫ হাজার করে ৪৫ হাজার টাকা প্রদান করেন। তাদের দেওয়া ৪৫ হাজার টাকার কোন রশিদ প্রদান করা না হলে মিষ্টি ব্যবসায়ীদের মাঝে সন্দেহ সৃষ্টি হয়।

এ ঘটনার পর হাট বাজার সমিতির সভাপতি গোলাম আযমের সঙ্গে যোগাযোগের চেষ্টা করা হলে তাকে পাওয়া যায়নি। 

পলাশবাড়ী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মাসুদ রানা জানান, বিষয়টি খতিয়ে দেখে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

এবিষয়ে  পলাশবাড়ী উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা কামরুজ্জামান নয়ন জানান, দশমীর প্রতিমা বিসর্জনের জন্য ব্যস্ত সময় পার করছি। তারপরে ছুটির দিন। এমন অভিযানের বিষয়ের তার জানা নেই।

প্রতিনিধি/একেবি