নির্মাণের আড়াই বছরেও চালু হয়নি কালকিনি পৌর বাস টার্মিনাল

বিধান মজুমদার অনি মাদারীপুর
প্রকাশিত: ১৮ সেপ্টেম্বর ২০২২, ১১:৪৯ এএম
নির্মাণের আড়াই বছরেও চালু হয়নি কালকিনি পৌর বাস টার্মিনাল
ছবি : ঢাকা মেইল

মাদারীপুরের কালকিনিতে কোটি কোটি টাকা ব্যয়ে পৌর বাস টার্মিনাল নির্মাণ করা হলেও আড়াই বছরেও চালু করা সম্ভব হয়নি। ফলে ঢাকা-বরিশাল মহাসড়কে যাত্রী ওঠা-নামা করায় বাড়ছে ঝুঁকি। এদিকে একমাসের মধ্যে এটি চালুর আশ্বাস দিয়েছেন পৌরসভার মেয়র। এদিকে চালু না হওয়ার কারণ অনুসন্ধানে এরইমধ্যে কাজ শুরু করেছে জেলা প্রশাসন। 

কালকিনি পৌর কর্তৃপক্ষ জানায়, মাদারীপুরের কালকিনি পৌরসভার ৪২ নম্বর মজিদবাড়ি মৌজার ১ একর ৩০ শতাংশ জায়গার উপর ২০১৮ সালের মে মাসে পৌর বাস টার্মিনাল নির্মাণ শুরু করে মিজান এন্টারপ্রাইজ নামের ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান। পরের বছর (২০১৯ সালের) ডিসেম্বরে কাজ সমাপ্ত দেখিয়ে চূড়ান্ত বিল তুলে নেওয়া হয়। কিন্তু কর্তৃপক্ষের উদাসীনতায় নবনির্মিত বাস টার্মিনালটি আজও চালু হচ্ছে না। ফলে মাদকসেবী আর বখাটেদের আড্ডাখানায় পরিণত হয়েছে এই বাস টার্মিনালটি।

kalkini

সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা যায়, তৎকালীন মেয়র এনায়েত হোসেন হাওলাদার দায়িত্বে থাকা অবস্থায় গুরুত্বপূর্ণ ১৯টি পৌরসভার অবকাঠামো উন্নয়ন প্রকল্পের অধীনে ২ কোটি ৫৫ লাখ ব্যয়ে এই বাস টার্মিনালটি নির্মাণ করা হয়। পদ্মা সেতু চালুর পর ঢাকা-বরিশাল মহাসড়কে যানবাহনের চাপ বেড়েছে কয়েকগুণ। কিন্তু বাস টার্মিনালটি চালু না হওয়ায় মহাসড়কের উপরেই যাত্রী ওঠা-নামা করানোতে বাড়ছে ঝুঁকি। যাত্রীদের মানসম্মত সেবা দেওয়ার লক্ষ্যে নির্মাণ করা হয় এই পৌর বাস টার্মিনালটি। এটি কি কারণে চালু করা যাচ্ছে না—এর রহস্য খুঁজে বের করে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নেওয়ার দাবি যাত্রী ও পরিবহন চালকদের।

>> আরও পড়ুন : সাভার পৌর কার্যালয় যেন ময়লার ভাগাড়

বাসের যাত্রী মো. মহিউদ্দিন বলেন, এতো সুন্দর বাস টার্মিনাল নির্মাণ করা হলেও এটি চালু করা হচ্ছে না। এটি চালু হলে স্বাচ্ছন্দে গাড়িতে ওঠানামা করা যাবে। কর্তৃপক্ষের কাছে দাবি দ্রুত এটি চালু করা হোক।

স্থানীয় বাসিন্দা সেলিম সরদার বলেন, এখানে বখাটের আড্ডা হয়। নেশা করে। আর রাত হলে ভুতুড়ে অন্ধকার হয় এখানে। এটা চালু হলে সবার ভাল হবে। 

মাহিন্দ্র চালক তোফাজ্জেল সরদার বলেন, কোটি টাকা খরচ করে টার্মিনাল নির্মাণ করলেও কোন লাভ হচ্ছেনা। ফলে মহাসড়কে যানজটের সৃষ্টি হয়। এটি চালু হলে যানজট ও দুর্ঘটনা রোধ হবে।

kalkini

বাসের চালক জব্বার শেখ বলেন, মহাসড়কে গাড়ির চাপ বেড়েই চলছে। দ্রæত এটি চালু করা দরকার। আমাদের দাবি বাস টার্মিনালটি চালু করা হোক। এতে সরকার রাজস্বও পাবে।

মাদারীপুরের কালকিনি পৌরসভার মেয়র এসএম হানিফ বলেন, বাস টার্মিনালটি চালুর প্রধান বাধা সড়কের ওপর বড় বড় গাছ। এই গাছ সড়ক বিভাগের। এটি অপসারণের জন্য উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ও পৌরসভা কর্তৃপক্ষ সড়ক বিভাগকে চিঠি দিয়েছে। তারা বলছে শিগগিরই গাছগুলো কেটে নিয়ে যাবে। আশা করছি একমাসের মধ্যে বাস টার্মিনালটি চালু করা সম্ভব হবে।

মাদারীপুরের জেলা প্রশাসক ড. রহিমা খাতুন বলেন, বাস টার্মিনালটি শিগগিরই চালুর লক্ষ্যে কাজ শুরু করেছে জেলা প্রশাসন। এরইমধ্যে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তাকে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে, কেন চালু হচ্ছে না এর কারণ খুঁজে বের করার জন্য। জনগণের জন্য নির্মিত বাস টার্মিনালটি দ্রুত চালু করা হবে।

প্রতিনিধি/এইচই