মানিকগঞ্জে বেইলি ব্রিজ ধসে ২৪ গ্রামের মানুষের দুর্ভোগ

জেলা প্রতিনিধি
মানিকগঞ্জ
প্রকাশিত: ১৬ সেপ্টেম্বর ২০২২, ০৭:৩২ পিএম
মানিকগঞ্জে বেইলি ব্রিজ ধসে ২৪ গ্রামের মানুষের দুর্ভোগ

মানিকগঞ্জের ঘিওর উপজেলার কুস্তা এলাকায় বেইলি ব্রিজের গোড়ার মাটি ধসে ঝুঁকিপূর্ণ হয়ে চলাচল বন্ধ থাকায় ২৪টি গ্রামের মানুষ দুর্ভোগে পড়েছেন।

শুক্রবার (১৬ সেপ্টেম্বর) দুপুরে গিয়ে দেখা যায়, ব্রিজটির গোড়ার মাটি দেবে যাওয়ার কারণে রাস্তা থেকে প্রায় ৮ ফুটের মতো বিচ্ছিন্ন হয়ে এক দিকে কাত হয়ে পড়ে রয়েছে। ব্রিজটি দিয়ে মানুষ বা কনোন যানবাহন চলাচল করতে পারেছে না। দ্রুত ব্যাবস্থা না নিলে যেকোনো সময় ব্রিজটি ভেঙে নদী গর্ভে বিলীন হয়ে যেতে পারে বলে আশঙ্কা দেখা দিয়েছে।

ইতোমধ্যে ভাঙন রোধে পানি উন্নয়ন বোর্ড জিওব্যাগ ফেলছে। তবে তা প্রয়োজনের তুলনায় কম বলে স্থানীয়দের অভিযোগ।

জানা গেছে, নতুন করে পানি বৃদ্ধির কারণে ঘিওরের ইছামতি নদীতে বাড়ছে স্রোত। ফলে ঘিওর উপজেলার গরুর হাট, কোস্তা এলাকার বেইলি ব্রিজ, গরুর হাট ও কবরস্থানসহ এলাকায় তীব্র ভাঙন শুরু হয়েছে। ইতিমধ্যে ভাঙনে গরু হাটের পশ্চিমাংশ নদীগর্ভে বিলীন হয়ে গেছে। হুমকির মুখে রয়েছে দুইটি ব্রিজ এবং আশপাশের ব্যাবসা প্রতিষ্ঠানসহ অন্তত ৩০টি বসত বাড়ি।

স্থানীয় বিপ্লব হোসেন জানান, নদীর পানি বাড়ার সাথে সাথে বেড়েছে তীব্র স্রোত। ফলে গত এক সপ্তাহ ধরে ঘিওর হাট এলাকায় ভাঙন শুরু হয়। ভাঙনরোধে পানি উন্নয়ন বোর্ড কর্তৃপক্ষ গরুর হাট এলাকায় জিওব্যাগ ফেলা শুরু করেছে। কিন্তু হাটের আশপাশের ভাঙন কবলিত এলাকায় তেমন কোনো ব্যাবস্থা নেওয়া হয়নি। ব্যাবস্থা নিলে কুস্তা এলাকার বেইলী ব্রিজটির ঘোড়ার মাটি ধসে যেতনা বলেও দাবি তার। 

কুস্তা গ্রামের রতন মিয়া জানান, কুস্তা বেইলি ব্রিজের দুপাশের মাটি ধসে গত সোমবার পূর্ব পাশের মাটি সড়ে গিয়ে দেবে যায় ব্রিজটি। এরপর থেকে জনসাধারণসহ যানবাহন চলাচল বন্ধ রয়েছে। সে কারণে এই ব্রিজ দিয়ে চলাচলকারী ২৪টি গ্রামের মানুষের উপজেলা সদরের সাথে যোগাযোগ করতে কষ্ট হচ্ছে। তাড়াতাড়ি ব্রিজটি যান চলাচলের উপযোগী করে তুলতে সরকারের কাছে জোর দাবি  জানান তিনি।

ঘিওর উপজেলার নির্বাহী কর্মকর্তা হামিদুর রহামান বলেন, কুস্তা খাদ্য গুদাম সংলঙ্গ বেইলি ব্রিজটি মেরামতের জন্য প্রয়োজনীয় ব্যাবস্থা ইতোমধ্যে গ্রহণ করা হয়েছে। এছাড়া হাট রক্ষায় স্থায়ী ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে অবহিত করা হয়েছে।

মানিকগঞ্জ এলজিইডির নির্বাহী প্রক্যোশলী ফয়জুল হক বলেন, ঘিওর উপজেলার কুস্তা ব্রিজটি ইছামতি নদীর ভাঙনের কবলে পড়ে পূর্বাংশ দেবে গেছে। ব্রিজটি মেরামতের জন্য ইতোমধ্যে ক্রেন আনা হয়েছে। ক্রেন দিয়ে ব্রিজটি উচু করার চেষ্টা করছি। তবে ব্রিজের ওজন বেশি হওয়ায় কাজ করতে কিছুটা সমস্যা হচ্ছে।

প্রতিনিধি/এএ