পুলিশের আটক ফেনসিডিলের বস্তা ছিনিয়ে খেলো মাদকসেবীরা!

জেলা প্রতিনিধি
 লালমনিরহাট
প্রকাশিত: ২০ আগস্ট ২০২২, ১২:৪৩ এএম
পুলিশের আটক ফেনসিডিলের বস্তা ছিনিয়ে খেলো মাদকসেবীরা!

একটি প্রাইভেটকার থেকে লালমনিরহাট গোয়েন্দা (ডিবি) পুলিশের উদ্ধার করা ফেনসিডিলের বস্তা ছিনিয়ে নিয়ে প্রকাশ্যে খেয়েছে মাদকসেবীরা। এ সময় গাড়ি ভাঙচুর করে আটককৃত চালক সফিকুল ইসলাম শফিককে ছিনিয়ে নেওয়ার চেষ্টা করে মাদক কারবারিরা।

শুক্রবার (১৯ আগস্ট) বিকেলে কাকিনা-মহিপুর-রংপুর  সড়কের এসকেজে বাজারে এই ঘটনা ঘটে। এ সময় প্রাইভেটকারটি নিয়ে পালিয়ে যাওয়ার পথে শিশুসহ তিন পথচারীকে ধাক্কা দেন। এতে তিনজন আহত হয়েছেন।

পুলিশ ও স্থানীয়রা জানান, দুপুরে লালমনিরহাট সীমান্তে থেকে ফেনসিডিল নিয়ে রংপুরের উদ্দেশে একটি প্রাইভেটকারে কয়েকজন মাদক কারবারি যাচ্ছিল। খবর পেয়ে লালমনিরহাট গোয়েন্দা (ডিবি) পুলিশের সদস্যরা গাড়িটিকে সন্দেহ করে তারা ধাওয়া করেন। এ সময় মাদক কারবারিরা পুলিশ ধাওয়া করেছে বিষয়টি টের পেয়ে দ্রুত পালিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করে। এ সময় ডিবি পুলিশের সদস্যরা ধাওয়া করলে মোটরসাইকেলে ধাক্কা দিয়ে তারা পালিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করে। কাকিনা-মহিপুর, রংপুর সড়কের এস কেজের বাজারের লোকজন প্রাইভেটকারটি আটকের চেষ্টা করলে তিন পথচারীকে চাপা দেয়। ওই সময় শিশুসহ তিন পথচারী আহত হন। এ সময় উত্তেজিত জনতা আহত ব্যক্তিদের চিকিৎসার দাবি করে বিক্ষোভ মিছিল করেন।

drug2

এই সুযোগে ওই এলাকার মাদক কারবারিরা মোটরসাইকেলে করে একটি দল এসে প্রাইভেটকারটি ও ডিবি পুলিশকে ঘিরে রাখে। তারা গাড়ির চালককে ছিনিয়ে নেওয়ার চেষ্টা করে। পরে বিষয়টি টের পেয়ে লালমিনরহাট ডিবি পুলিশের সদস্যরা গঙ্গাচড়া থানা ও কালীগঞ্জ থানায় খবর দেন। এতে পুলিশ সদস্যরা ছুটে যান। এর আগেই প্রাইভেটকার থেকে ফেনসিডিলের একটি বস্তা ছিনিয়ে নেয় মাদকসেবীরা। পরে পুলিশের সামনে তারা ফেনসিডিল নিয়ে প্রকাশ্যে সেবন করে। এক পর্যায়ে স্থানীয় জনতা তাদের মারধর করে।

ওই এলাকার কয়েকজন জানান, প্রতিদিন শত শত মোটরসাইকেলে করে রংপুর থেকে লালমনিরহাট সীমান্তের দিকে যায় মাদকসেবীরা। পুলিশের চেকপোস্ট থাকা সত্ত্বেও বেশিরভাগ সেবনকারী পার পেয়ে যায় বলে অভিযোগ রয়েছে।

গঙ্গাচড়া মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) সুশান্ত কুমার সরকার ঢাকা মেইলকে বলেন, মাদক নিয়ে পালিয়ে যাওয়ার পথে লালমনিরহাট ডিবি পুলিশের হাতে প্রাইভেটকারসহ ফেনসিডিল আটক হয়। পরে ওই প্রাইভেটকারের ধাক্কায় কয়েকজন আহত হলে তারা ক্ষতিপূরণ দাবি করেন। কালীগঞ্জ থানা পুলিশকে আসামিসহ প্রাইভেটকারটি বুঝিয়ে দেওয়া হয়েছে।

কালীগঞ্জ থানার ওসি এটিএম গোলাম রুসূল ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, ডিবি পুলিশেল হাতে আটকের পর স্থানীয়রা ঝামেলা করছিল। পরে খবর পেয়ে প্রাইভেটকারটিসহ ২৮৬ বোতল ফেনসিডিল উদ্ধার করা হয়েছে। তবে ওই সময় মাদকের বস্তা ছিনিয়ে নিয়েছে কি না আমার জানা নেই। খোঁজ-খবর নিয়ে আপনাদের জানানো হবে।

প্রতিনিধি/জেবি