প্রেমের প্রস্তাবে রাজি না হওয়ায় ছাত্রীকে মারধর

জেলা প্রতিনিধি
ভোলা
প্রকাশিত: ২৪ জুন ২০২২, ০৫:৫৩ পিএম
প্রেমের প্রস্তাবে রাজি না হওয়ায় ছাত্রীকে মারধর
ছবি : ফাইল ছবি

ভোলার বোরহানউদ্দিন উপজেলায় প্রেমের প্রস্তাবে রাজি না হওয়ায় রিকশা থেকে নামিয়ে প্রকাশ্যে এক কলেজছাত্রীকে মারধরের অভিযোগে কিশোর শান্তকে (২৪) গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

শুক্রবার (২৪ জুন) সকালে তাকে আদালত তাকে জেল হাজতে পাঠান।

এর আগে, গতকাল বৃহস্পতিবার রাত সাড়ে ৮টার দিকে তথ্য প্রযুক্তি ব্যবহার করে বোরহানউদ্দিন উপজেলার হাসান নগর ইউনিয়ন থেকে তাকে গ্রেফতার করা হয়। 

গ্রেফতার কিশোর উপজেলার কুঞ্জের হাট এলাকার সৌদি প্রবাসী মো. জামাল হোসেনের ছেলে। 

মারধরের শিকার ছাত্রী একই উপজেলার হাসান নগর ইউনিয়নের দক্ষিণ হাসান নগর গ্রামের বাসিন্দা। সে বোরহানউদ্দিন উপজেলার আব্দুল জব্বার কলেজের উচ্চ মাধ্যমিকে প্রথম বর্ষের শিক্ষার্থী।

শুক্রবার (২৪ জুন) দুপুর আড়াইটার দিকে বোরহানউদ্দিন থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শাহীন ফকির ঢাকা মেইলকে এ তথ্য নিশ্চিত করেন।

পুলিশ ও মামলা সূত্রে জানা যায়, দীর্ঘদিন যাবত কলেজে আসা-যাওয়ার পথে শান্ত তার কয়েকজন বন্ধু নিয়ে ওই ছাত্রীকে প্রেমের প্রস্তাব দিয়ে উত্যক্ত করে আসছিলেন। মাঝেমধ্যে ছাত্রীর সাথে অশ্লীল ভাষায় আচরণ করতেন। সবশেষ ১৯ জুন সকাল সাড়ে ১১টার দিকে ওই ছাত্রী কলেজ থেকে একটি অটোরিকশা যোগে বাড়ি ফিরছিলেন। ওই সময় তার দুই সহপাঠী রিকশায় ছিলেন।

রিকশাটি বোরহানউদ্দিন উপজেলার সরকারি পলিটেকনিক ইনস্টিটিউটের কাছে এসে পৌঁছালে শান্ত ও তার ৩-৫ জন বন্ধু রিকশাটির গতিরোধ করে রিকশা থেকে ওই ছাত্রীকে টেনেহিঁচড়ে রাস্তায় নামিয়ে প্রকাশ্যে চড়থাপ্পড় মারে। ভুক্তভোগীর সঙ্গে থাকা সহপাঠীরা এ ঘটনার প্রতিবাদ করলে তাদেরকেও মারধর করা হয়। পুরো ঘটনাটি শান্তর সঙ্গে থাকা এক বন্ধু মুঠোফোনে ভিডিওচিত্র ধারণ করে।

এরপর স্থানীয়দের সহযোগিতায় ভুক্তভোগী চিকিৎসার শরণাপন্ন হন।

২০ জুন বোরহানউদ্দিন থানায় ভুক্তভোগী ছাত্রী বাদী হয়ে শান্তকে প্রধান আসামি করে একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন।

ঘটনার পর ভুক্তভোগী ছাত্রী সোশ্যাল মিডিয়া ফেসবুকের মাধ্যমে সাংবাদিক আবুল কালাম আজাদকে ঘটনাটির বিস্তারিত বর্ণনা দেন। ভুক্তভোগী ছাত্রী ও সাংবাদিকের কথোপকথনের একটি ভিডিও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়লে ঘটনাটি নিয়ে সোশ্যাল মিডিয়ায় তোলপাড় সৃষ্টি হয়।

এরপর বোরহানউদ্দিন থানা পুলিশ লিখিত অভিযোগ থেকে একটি মামলা রুজু করেন। যার মামলা নম্বর-২৪/২২।

বোরহানউদ্দিন থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শাহীন ফকির জানান, ভুক্তভোগী ছাত্রীর লিখিত অভিযোগ মামলায় রুজু করা হয়েছে। এরপর বৃহস্পতিবার রাতে মামলার প্রধান আসামি শান্তকে উপজেলার হাসান নগর ইউনিয়নের তার এক আত্মীয়ের বাড়ি থেকে তথ্য প্রযুক্তি ব্যবহার করে গ্রেফতার করা হয়। শুক্রবার সকালে আসামিকে আদালতে তোলা হলে আদালত তাকে জেল হাজতে পাঠান।

ওসি আরও জানান, মামলার অন্যান্য আসামিদের গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে।

প্রতিনিধি/এইচই