শুক্রবার, ২১ জুন, ২০২৪, ঢাকা

হাত-পা বেঁধে, চোখে-মুখে সুপারগ্লু দিয়ে গৃহবধূকে ধর্ষণ!

জেলা প্রতিনিধি, খুলনা
প্রকাশিত: ১২ ফেব্রুয়ারি ২০২৪, ০৪:০৬ পিএম

শেয়ার করুন:

হাত-পা বেঁধে, চোখে-মুখে সুপারগ্লু দিয়ে গৃহবধূকে ধর্ষণ!

খুলনায় হাত-পা বেঁধে এবং চোখে-মুখে সুপারগ্লু দিয়ে গৃহবধূকে ধর্ষণের অভিযোগ করেছেন তার স্বজনরা। রোববার (১১ ফেব্রুয়ারি) দিবাগত রাত ৩টা থেকে ৪টার মধ্যে এ ঘটনা ঘটে। পাইকগাছা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা এ বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

ভুক্তভোগীর পরিবারের সদস্যরা বলেছেন, রোববার রাতে কে বা কারা মই দিয়ে ছাদে প্রবেশ করে সিড়ির দরজা শাবল দিয়ে ভেঙে গৃহবধূর শয়ন কক্ষে প্রবেশ করে। ওই গৃহবধূর স্বামী ব্যবসার কাজে বাইরে থাকায় তিনি বাড়িতে একা ছিলেন। এরপর গৃহবধূর হাত-পা বেঁধে চোখে সুপারগ্লু আঠা লাগিয়ে মুখে টেপ লাগিয়ে রেখে জোরপূর্বক ধর্ষণ করা হয়। ওই সময় তার শরীরের বিভিন্ন জায়গায় আঘাত করে এক জোড়া স্বর্ণের কানের দুল এবং আনুমানিক দু’লাখ টাকা নিয়ে পালিয়ে যায় অভিযুক্তরা। পরে গৃহবধূর গোঙানির শব্দে আশেপাশের লোকজন এসে তার স্বামীকে খবর দেন এবং তাকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।


বিজ্ঞাপন


পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, খুলনার পাইকগাছা উপজেলায় কে বা কারা বাড়িতে ঢুকে চোখ-মুখে সুপারগ্লু দিয়ে এক গৃহবধূর (৪৫) হাত-পা বেঁধে ফেলে। এরপর তাকে ধর্ষণ করে। সোমবার (১২ ফেব্রুয়ারি) সকালে আশঙ্কাজনক অবস্থায় তাকে খুলনা মেডিকেল কলেজ (খুমেক) হাসপাতালের ওয়ান-স্টপ ক্রাইসিস সেলে (ওসিসি) ভর্তি করা হয়েছে।

গৃহবধূর স্বামী বলেন, একতলা ছাদের ওপরের সিড়ি ঘর খোলা ছিল। আমার স্ত্রীর চোখ ও মুখ সুপারগ্লু আঠা দিয়ে আটকে দেয় ধর্ষক। আমার স্ত্রী কথা বলতে পারছে না, তাই কয়জন ছিল এখনই তা বলা যাচ্ছে না।

এ ব্যাপারে সহকারী পুলিশ সুপার ডি-সার্কেল সাইফুল ইসলাম ও পাইকগাছা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা জানান, খবর পেয়ে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন তারা।

ওসি ওবায়দুর রহমান বলেন, গৃহবধূকে হাত-পা বাঁধা অবস্থায় পাওয়া যায়। ধর্ষণ হয়েছেন কিনা বা সুপারগ্লু দিয়েছে কিনা এখনই বলা যাচ্ছে না। আমরা ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছি, বিষয়টি নিয়ে তদন্ত শুরু হয়েছে।


বিজ্ঞাপন


প্রতিনিধি/ এমইউ

ঢাকা মেইলের খবর পেতে গুগল নিউজ চ্যানেল ফলো করুন

সর্বশেষ
জনপ্রিয়

সব খবর