বৃহস্পতিবার, ২৫ এপ্রিল, ২০২৪, ঢাকা

মানিকগঞ্জে প্রতিবন্ধীকে ধর্ষণের পর হত্যা, আসামির মৃত্যুদণ্ড

জেলা প্রতিনিধি, মানিকগঞ্জ
প্রকাশিত: ১৫ নভেম্বর ২০২৩, ০৩:৫৬ পিএম

শেয়ার করুন:

মানিকগঞ্জে প্রতিবন্ধীকে ধর্ষণের পর হত্যা, আসামির মৃত্যুদণ্ড

মানিকগঞ্জে প্রতিবন্ধী এক নারীকে ধর্ষণ করে হত্যা করার অপরাধে আসামি রোকমান হোসেন টোনাকে (৩৫) মৃত্যুদণ্ড দিয়েছেন আদালত।

বুধবার (১৫ নভেম্বর) দুপুরে আসামির উপস্থিতিতে মনিকগঞ্জের নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালের বিচারক বেগম তানিয়া কামাল এই রায় ঘোষণা করেন।


বিজ্ঞাপন


দণ্ডিত রোকমান হোসেন টোনা মানিকগঞ্জের সিংগাইরের বড় কালিয়াকৈর গ্রামের আমোদ আলীর ছেলে।

 মামলার এজহার থেকে জানা যায়, ২০১৯ সালের ৫ ডিসেম্বর রাতে মানিকগঞ্জের সিংগাইর উপজেলার গোলাইডাঙ্গা বাস্তা গ্রামের মৃত দেলোয়ার হোসেন দিলবরের মেয়ে বুদ্ধি প্রতিবন্ধী ছমিরনকে (৪৫) ধর্ষণের পর বটি দিয়ে গলা কেটে হত্যা করে পালিয়ে যায় রোকমান হোসেন টোনা।

রাতে নিহত ছমিরনের ভাবি ওয়াজ শুনে ফেরার সময় বাড়ির সংলগ্ম রাস্তা দিয়ে রোকমাকে শরীরে রক্ত মাখা অবস্থায় দ্রুত হেটে যেতে দেখতে পান। তিনি দ্রুত বাড়ি গিয়ে তার শ্বাশুড়িকে তার নুনাসের কথা জিজ্ঞাসা করেন। পরে ঘর খুলে দেখতে পান রক্তাক্ত অবস্থায় ছমিরন পরে রয়েছেন। তা দেখে তারা চিৎকার করলে আশপাশের লোকজন এগিয়ে আসে। এই বিষয়টি জানালে ধাওয়া করে রোকমান হোসেন টোনাকে আটক করে পুলিশের কাছে তুলে দেয় স্থানীয়রা।

ঘটনার পরের দিন ৬ ডিসেম্বর নিহতের ভাবি সেবিকা আক্তার সুমি (৩০) রোকমান হোসেন টোনাকে আসামিকে করে সিংগাইর থানায় মামলা করেন। মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা সিংগাইর থানার ইন্সপেক্টর আব্দুস সাত্তার আসামিকে অভিযুক্ত করে ২০২০ সালের ১৮ এপ্রিল আদালতে চার্শিট দাখিল করেন।


বিজ্ঞাপন


উভয়পক্ষের আইনজীবীর যুক্তিতর্ক শেষে ১৫ জনের সাক্ষগ্রহণ শেষে আসামির উপস্থিতিতে মৃত্যুদণ্ড ঘোষণা করেন বিচারক।

রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবী এ.কে.এম নূরুল হুদা রুবেল রায়ে সন্তোষ প্রকাশ করে বলেন, আটকের পর আসামি বিভিন্ন সময় জামিনে ছিলেন। সর্বশেষ জামিনের আবেদন করলে বিচারক জামিন আবেদন না মঞ্জুর করেন। রায়ে বিচারক আসামিকে মৃত্যুদণ্ড অর্থাৎ আসামিতে ফাঁসিতে ঝুলিয়ে মৃত্যুদণ্ডাদেশ প্রদান করেছেন।

প্রতিনিধি/এসএস

ঢাকা মেইলের খবর পেতে গুগল নিউজ চ্যানেল ফলো করুন

সর্বশেষ
জনপ্রিয়

সব খবর