মঙ্গলবার, ২৭ ফেব্রুয়ারি, ২০২৪, ঢাকা

যেসব বিমানে যাত্রীরা রাজকীয় সুবিধা পান

এভিয়েশন ডেস্ক
প্রকাশিত: ২৭ জানুয়ারি ২০২৩, ১২:০১ পিএম

শেয়ার করুন:

যেসব বিমানে যাত্রীরা রাজকীয় সুবিধা পান

বিশ্বে এমন কিছু এয়ারলাইন্স রয়েছে যেখানকার প্রথম শ্রেণির ভ্রমণ কোনও রাজকীয়তার থেকে কম কিছু নয়। সেসব এয়ারলাইন্সের প্রথম শ্রেণিতে গেলে নিজেকে এক দিনের রাজা বলে মনে হতে পারে।

বিজনেস ক্লাস, প্রিমিয়াম ইকোনমি এবং ইকোনমি ক্লাসের তুলনায় এয়ারলাইনে প্রথম শ্রেণির ভ্রমণ সবচেয়ে বেশি বিলাসবহুল। সেই পরিষেবা এবং ডিজাইনের কোনও তুলনা হয় না। এখানে বিলাসবহুল যাত্রা যে কোনও এয়ারলাইন্সের যাত্রীর কাছে এক অনন্য ভ্রমণ অভিজ্ঞতা। যদি কোনও ভ্রমণকারী একদিনের জন্য রাজার মতো সময় কাটাতে চান বা বিলাসবহুল হোটেলের মতো সুবিধা উপভোগ করতে চান, তাহলে যত তাড়াতাড়ি সম্ভব এই চার এয়ারলাইনগুলিকে আপনার ভ্রমণ তালিকায় যুক্ত করুন।


বিজ্ঞাপন


এই বাণিজ্যিক এয়ারলাইন্সের প্রথম শ্রেণির আসনের যাত্রীদের অসাধারণ ডাইনিং, প্রাইভেট স্পেস, বিলাসবহুল সুযোগ-সুবিধা, প্রিমিয়াম ড্রিঙ্ক পরিষেবা এবং বিমানবন্দর থেকে যাতায়াতের জন্য ব্যক্তিগত পরিবহনের মতো পরিষেবা দেওয়া হয়। 

travelপ্রথম শ্রেণির আসনগুলোতে যাওয়ার ইচ্ছে থাকলে এই পাঁচ এয়ারলাইন্স সম্পর্কে জেনে রাখা দরকার।

সিঙ্গাপুর এয়ারলাইন্স

সিঙ্গাপুর এয়ারলাইন্সে রয়েছে বিশ্বের বৃহত্তম প্রথম শ্রেণির ক্যাটাগরির আসন। এখানকার কেবিন স্টাফদের ব্যবহার যেমন সেরা তেমনই অসাধারণ এখানকার খাবার। সিঙ্গাপুর এয়ারলাইন্সের ফার্স্ট ক্লাস কেবিনে ছয়টি স্যুট থাকে। এর কেবিনটি উপরের ডেকের দিকে থাকে। 


বিজ্ঞাপন


প্রতিটি স্যুটে একটি করে পৃথক আরামদায়ক বিছানা থাকে। এই বিছানা নিজের সুবিধামতো করে অ্যাডজাস্ট করে নিতে পারবেন। রয়েছে একটি আরামদায়ক চামড়ার চেয়ার, এটিও যাত্রী নিজের সুবিধা মতো অ্যাডজাস্ট করে নিতে পারেন। এখানে দুটি স্যুট রয়েছে, যেখানে দুইজন যাত্রী একটি সিঙ্গেল বেডকে ডাবল বেডে রূপান্তর করতে পারেন। আপনি প্রতিটি স্যুটে একটি ওয়ার্ডরোব এবং ৩২ ইঞ্চ ফুল এইচডি মনিটরও পাবেন।

জাপান এয়ারলাইন্স

জাপান এয়ারলাইন্সের প্রথম শ্রেণির স্যুটটিও কিন্তু কম নয়। এটি অত্যন্ত আরামদায়ক এবং বিলাসবহুল। জাপান এয়ারলাইন্স তার প্রথম শ্রেণির যাত্রীদের সকল প্রকার সুবিধা প্রদান করে থাকে। এর ভিতরের সাজসজ্জা কাঠের তৈরি। ঘন্টা কয়েকের জন্য দারুণ শান্তিতে থাকতে পারবেন। বাড়ির অভাব বোধ করবে না। ঘরের ভিতর একটি স্টোরেজ স্পেস, একটি ইন-ফ্লাইট এন্টারটেইনমেন্ট কন্ট্রোলার, একটি ল্যাপটপ পাওয়ার সাপ্লাই এবং একটি ২৩ ইঞ্চ ব্যক্তিগত বিনোদন স্ক্রিন রয়েছে স্যুটের ভিতর।

এমিরেটস

এমিরেটস ফার্স্ট ক্লাস ভ্রমণের বিলাসবহুল অভিজ্ঞতার কোনও তুলনা হয় না। এমিরেটস এয়ারলাইন্সের সবচেয়ে সুন্দর হল তাদের প্রথম শ্রেণি। এখানে প্রথম শ্রেণির স্যুটগুলোতে বিলাসিতার জন্য একটি আলাদা বার সেট রয়েছে। মেঝে থেকে ছাদ পর্যন্ত এখানে স্লাইডিং দরজা দেখতে পাবেন। বিলাসবহুল চামড়ার আসনে বসতে দারুণ আরাম।

travelমজার বিষয় হল, মধ্যাকর্ষণ শক্তি শূন্য থাকলেও এই আসনটি আপনি নিজের মতো করে সেট করতে পারবেন। এমিরেটস স্যুটগুলোর জন্য ভার্চুয়াল উইন্ডোও আছে যাতে যাত্রীরা বাইরে দৃশ্য দেখতে পান।। এই ভার্চুয়াল উইন্ডোগুলো রিয়েল-টাইম ক্যামেরা প্রযুক্তি ব্যবহার করে বাইরের দৃশ্য প্রজেক্ট করে।

ইতিহাদ এয়ারওয়েজ

ইতিহাদ এয়ারওয়েজ ফার্স্ট ক্লাস লাউঞ্জ বিশ্বের সেরা গ্রাউন্ড এক্সপেরিয়েন্সগুলোর মধ্যে একটি। এতে টপ-সেলফ পণ্যসহ একটি সিগার লাউঞ্জ, সাদা টেবিলক্লথ সহ একটি লা কার্টে ডাইনিং এবং দুইটি ককটেল বার রয়েছে। এই আবুধাবি এয়ারলাইন্স বিলাসিতার ক্ষেত্রে এক ভিন্ন দৃষ্টান্ত স্থাপন করেছে। প্রথম অ্যাপার্টমেন্টে একটি চামড়ার চেয়ার রয়েছে। এটি একদিকে যেমন একটি বসার জায়গা, তেমনই পাশাপাশি একটি ২০৮ সেন্টিমিটার (৬ ফিট ১০ ইঞ্চ)-এর একটি বিছানা। টেবিলক্লথ, কাটলারি, চমৎকার খাবার এবং চমৎকার পরিষেবাসহ আপনি এখানে একটি ভিন্ন অভিজ্ঞতা উপভোগ করবেন।

এজেড

ঢাকা মেইলের খবর পেতে গুগল নিউজ চ্যানেল ফলো করুন

সর্বশেষ
জনপ্রিয়

সব খবর