সস্তায় বিমানের টিকিট কাটার কৌশল

তথ্যপ্রযুক্তি ডেস্ক
প্রকাশিত: ০৪ আগস্ট ২০২২, ০৩:৪৫ পিএম
সস্তায় বিমানের টিকিট কাটার কৌশল

উড়োজাহাজ বা বিমানের ভাড়া অন্যান্য যানবাহনের চেয়ে বেশি। তাই খুব বেশি দরকার না পড়লে কেউ বিমানে ভ্রমণ করেন না। বিশেষ করে অভ্যন্তরীণ রুটে বিমানের ভাড়া বাস, ট্রেনের চেয়েও বেশি। কিন্তু বিদেশে যেতে চাইলে বিমানে চড়তেই হবে। 

অন্যান্য পরিবহনের ভাড়ার মতোই বিমানেও ভাড়া ওঠা-নামা করে। উড়ান পরিচালনাকারী সংস্থাগুলো বিভিন্ন সময়ে অফার দেয়। ভ্রমণকারীদের টিকিটে ছাড় দেয়। এসব অফার ও ছাড়ের সুযোগ নিয়ে অনেকেই টিকিট কাটেন। 

ticketকিছু সহজ কৌশল অবলম্বন করলে বিমান টিকিটে ডিল/ডিসকাউন্ট অর্থাৎ বেশ খানিকটা ছাড় পাওয়া যেতে পারে। জানুন সেই কৌশল।

তথ্যপ্রযুক্তির ব্যবহার

তথ্যপ্রযুক্তির ব্যবহার করে কম খরচে, ডিসকাউন্ট নিয়ে বিমানের টিকিট কাটা যায়। জানুন এমন কয়েকটি উপায়।  

গুগল এক্সপ্লোর

সমস্ত ভ্রমণ-সম্পর্কিত প্রয়োজনের জন্য এক্সপ্লোর গুগলের অন্যতম একটি ভালো পরিষেবা৷ এই অ্যাপটির মাধ্যমে  গুগল হোটেল, ফ্লাইট বুকিং, কোথায় গিয়ে কী করতে হবে বা এ রকম অনেক কিছু পরিকল্পনা করতে সাহায্য করে।

ticketএছাড়াও, এই টুলটি বিমান ভাড়ার স্তর বিন্যাসও দেখিয়ে দেয়। বিমান ভাড়ার বাড়া-কমার খবরও রাখে। ওয়েবসাইটটির মাধ্যমে তুলনামূলক ভাবে কম ভাড়ায় বিমান টিকিট বুক করতে সাহায্য করতে পারে।

ক্রোম প্লাগইন

 গুগল ক্রোম কিছু ‘প্লাগ-ইন’ অফার (তৃতীয় পক্ষ) করে যা, বিমান ভাড়ার উপর নজর রাখতে সাহায্য করতে পারে। ফলে সহজেই দেখে নেওয়া যেতে পারে কখন কোন উড়ান অপেক্ষাকৃত সস্তায় পাওয়া যেতে পারে।

ticket

ইনকগনিটো মোড ব্যবহার

বেশির ভাগ এয়ারলাইন বা টিকিট বুকিং ওয়েবসাইটগুলো কুকি ব্যবহার করে যাত্রী বা ক্রেতার উপর নজরদারি চালায়। সুযোগ বুঝে দাম বাড়িয়ে দেয়। ধরা যাক কোনও ব্যক্তি ঢাকা থেকে কক্সবাজার যাওয়ার বিমান তালিকা ও ভাড়া দেখে রাখলেন। আধঘণ্টা পর তিনি যখন তা বুক করার জন্য ফের ওই ওয়েবসাইটে ঢুকবেন তখন দেখবেন দাম বেড়ে গিয়েছে। এ থেকে মুক্তি পেতে নিজেকে লুকিয়ে ফেলতে হবে। ব্যবহার করতে হবে ইনকগনিটো মোড অথবা মুছে ফেলতে হবে কুকি।

দিনের বেলার ভ্রমণ করুন

অনেক সময়ই দেখা যায় যে দিনের বেলায় বিমান ভ্রমণে ফ্লাইটগুলোতে ভাড়া অপেক্ষাকৃত কম থাকে। সে ক্ষেত্রে সময় যদি তেমন সমস্যা না করে তা হলে তা বেছে নিলে খানিকটা সাশ্রয় হতে পারে। তবে এমন কোনও লিখিত নিয়ম নেই। ফলে বিমানের সময়সূচি এবং ভাড়া মিলিয়ে দেখে নেওয়াই ভালো।

passengerসপ্তাহে এক দিন ভাড়া কম

কোনও বিমান ভাড়া দেখার ওয়েবসাইটে সাধারণত এক সপ্তাহের সর্বনিম্ন ভাড়া দেখানো হয়। ফলে ভ্রমণের দিন নিয়ে খুব বেশি খুঁতখুঁতে ভাব না থাকলে নির্দিষ্ট দিনের দুই এক দিন আগে বা পরের ফ্লাইটগুলো দেখা যেতে পারে। তাতে খরচ খানিকটা বাঁচতে পারে।

কার্ডে ভাড়া পরিশোধে ছাড়

বিভিন্ন ব্যাংকের ডেবিট বা ক্রেডিট কার্ড বিমানের টিকিট কাটলে অনেক সময় ছাড় থাকে। এছাড়াও কিছু কিছু ব্যাংক ডেডিকেটেড ট্রাভেল কার্ড অফার করে যা। বিমানের টিকিট কাটার সময় অতিরিক্ত ছাড় দেয়।

ticketএয়ারলাইন লয়ালটি পয়েন্ট

গ্রাহক ধরে রাখতে বেশিরভাগ এয়ারলাইনই লয়েলেটি প্রোগ্রামের ব্যবস্থা রাখে। এর সঙ্গে টিকিট বুকিং ছাড়ও দেওয়া হয়। কিছু কিছু এয়ারলাইন লয়ালটি পয়েন্ট বা মাইল অফার করে। তাতে খরচ সাশ্রয় হতে পারে।

সোশ্যাল মিডিয়া

এয়ারলাইন্স এবং অন্যান্য অনলাইন টিকিট বুকিং প্ল্যাটফর্মগুলো সাধারণত সোশ্যাল মিডিয়া প্ল্যাটফর্মে তাদের অফার সংক্রান্ত বিজ্ঞাপন দিয়ে থাকে। ফলে নজর রাখা সহজ।

passport

এয়ারলাইন্স থেকে সরাসরি টিকিট কাটুন

অনেক সময় সরাসরি সংশ্লিষ্ট বিমান কর্তৃপক্ষের সঙ্গে যোগাযোগ করে তাদের কাছ থেকে টিকিট কিনলে একটু কম খরচে পাওয়া যায়। তবে এটার জন্য আপনাকে অনেকগুলো এয়ারলাইন কোম্পানির ওয়েবসাইট খুঁজে দেখতে হবে এবং তাদের কাছে ই-মেইলও পাঠাতে হতে পারে।

কয়েক সপ্তাহ আগে টিকিট কিনুন

আপনি যদি আপনার ভ্রমণের তারিখ বিষয়ে নিশ্চিত থাকেন, তাহলে মাস খানেক আগেই ফ্লাইট এর টিকিট কিনে ফেলেন, তাহলে অনেক সস্তায় পেয়ে যাবেন। এরকম সময়ে কেবলমাত্র প্রাথমিক মূল্যে টিকিট বিক্রি করা হয়, এর পরে আস্তে আস্তে সীট ভরতে শুরু করলে বা ফ্লাইট এর সময় এগিয়ে আসতে শুরু করলে মূল্য বাড়তে থাকে।

এজেড