প্রতি ৫ জনের ১ জন বিমানে উড়তে ভয় পান!

এভিয়েশন ডেস্ক
প্রকাশিত: ১৩ মে ২০২২, ০৪:২৫ পিএম
প্রতি ৫ জনের ১ জন বিমানে উড়তে ভয় পান!

বিমান ভ্রমণ নিয়ে মানুষের কৌতুহলের অন্ত নেই! যদিও সবার আকাশে উড়তে মন চায় কিন্তু ভয়ও লাগে। অদ্ভুত তথ্য হচ্ছে, পৃথিবীর প্রতি পাঁচ জনের একজন বিমানে উড়তে ভয় পান। এদের রয়েছে উচ্চতা ভীতি। এই ভীতির নাম এভিওফোবিয়া। যা উড়াল ভীতি নামেও পরিচিত। বিমান ভ্রমণের এমন কয়েকটি চমকপ্রদ তথ্য জানুন। 

হাসপাতালে যেভাবে বাতাস ফিল্টারের মাধ্যমে বিশুদ্ধ করা হয় ঠিক একই প্রযু্ক্তিতে বিমানের ভেতরের বাতাস বিশুদ্ধ করা হয়।

planeবিমানের কেবিন চাপ নিয়ন্ত্রিত অবস্থায় থাকে। অধিক উচ্চতায় উড্ডয়নকালীন সময়ে হঠাৎ বিমানের দরজা খুলে গেলে ঠিক কী ঘটবে? হঠাৎ দরজা খুলে গেলে বাইরের বাতাসের চাপের কারণে ভেতরের যাত্রী ও অন্যান্য জিনিসপত্র বাতাস বাইরে টেনে নিয়ে যাবে। এসেই কারণে, চাপ নিয়ন্ত্রিত কেবিনে উড্ডয়ন কালীন সময়ে উড়োজাহাজের দরজা খোলা কয়েকজন সবল লোকের পক্ষেও প্রায় অসম্ভব।

আপনি জানেন কি, বিমানের আয়ুষ্কাল কীভাবে নির্ণয় করা হয়? বিমানের আয়ুষ্কাল বছর দ্বারা নির্ধারিত হয় না। প্রতি উড্ডয়নে একটি বিমানের অভ্যন্তরীণ চাপ নিয়ন্ত্রণ করা হয়। এর ফলে বিমানের ফিউজলেজে ধাতব ক্লান্তি) এবং মেরামত অযোগ্য অদৃশ্য ফাটল সৃষ্টি হয়। একটি বিমানের আয়ুষ্কাল নিরূপনের জন্য সাধারণত ৭৫ হাজার বার এই চাপ নিয়ন্ত্রণ সংখ্যা গণনা করা হয়। সেই হিসাবে একটি বিমানের গড় আয়ুষ্কাল ২০-২৫বছর।

plane

এক হিসাব অনুযায়ী, বিমান ভ্রমণের সময় প্রতি ঘন্টায় দুই কাপ পরিমান পানি দেহ থেকে বেরিয়ে যায়। দীর্ঘ ভ্রমণে একজন যাত্রী ডিপ ভেইন থ্রম্বসিসে আক্রান্ত হতে পারেন। তাই উড়োজাহাজে দীর্ঘ ভ্রমণের আগে, ভ্রমণের সময় এবং পরে প্রচুর পানি পান করা উচিত।

এজেড